• রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
  • ||

‘আপনাদের সন্তানেরা শিক্ষিত হলে দেশ এগিয়ে যাবে’

প্রকাশ:  ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৭
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ ও সুনামগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেছেন, আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এই এলাকার সার্বিক উন্নয়নে কাজ করছি। যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ শিক্ষা অবকাঠামোতে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে পেরেছি আপনাদের সহযোগিতায়। আমি যখন সংসদ সদস্য হই তখন অনেক রাস্তা মাটির ছিলো তা নিশ্চয়ই আপনাদের স্মরণ আছে। আমি উদ্যোগ নিয়ে সেই সকল রাস্তা অনেক গুলো পাকা করণ করেছি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সদর উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ের ২ কোটি ৭৯লক্ষ টাকা ব্যয়ে নারায়ণতলা মিশন স্কুল রাস্তায় ৩০ মিটার পিএসসি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন শেষে আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ কথা বলেন।

পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন, হালুয়ারঘাট মঙ্গলকাটা রাস্তার বেহাল দশা পরিবর্তনই করিনি শুধু রাস্তাটি প্রশস্ত করেছি। জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অনেকগুলো ব্রিজ নির্মাণ করে দিয়েছি। আরো বেশ কিছু ব্রিজ প্রস্তাবাধীন আছে, শিগগিরই সেগুলো অনুমোদন ও বাস্তবায়ন করা হবে। আজকে যে ব্রিজটি আমি ভিত্তি প্রস্থর করেছি এই রাস্তাটিও প্রকল্পে অন্তভূক্ত করেছি। এই রাস্তার নুরুজপুর অংশে ইতোমধ্যেই আমার বরাদ্দ দিয়ে পাকা করণ করেছি।

তিনি আরো বলেন, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নকে যোগাযোগে একটি মডেল ইউনিয়নের স্বপ্ন নিয়েই আমি এলজিইডিতে এই ইউনিয়নের জনগুরুত্বপূর্ণ বেশির ভাগ রাস্তা পাকা করণের জন্যই এলজিইডির বিভিন্ন প্রকল্পে অন্তভূক্ত করেছি। পর্যায়ক্রমে সেই সকল কাজ আমরা শুরু করবো। আমার সময়েই জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন শতভাগ বিদ্যুতায়িত হয়েছে।

সুনামগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য বলেন, জাহাঙ্গীরনগরের স্কুল-মাদ্রাসায় আধুনিক ভবন করে দিয়েছি। আরো ভবন দেবো তবে আপনাদেরকে অনুরোধ করবো, ‘‌‌আপনারা আপনাদের সন্তানদেরকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করার উদ্যোগ ও চেষ্টা অব্যাহত রাখবেন’। সন্তানেরা শিক্ষিত হলেই প্রকৃতপক্ষে আপনার ঘর, শহর আলোকিত হবে দেশ এগিয়ে যাবে।

তিনি বলেন, ধারারগাঁও-হালুয়ারঘাট সেতু নিয়ে অপরাজনীতি হচ্ছে, এটি কাম্য নয়। এটি যারা করছেন তারা প্রকৃতপক্ষে এই এলাকার উন্নয়ন চান না।

পীর মিসবাহ বলেন, আমিই সেতু নির্মাণের দাবিটি মহান সংসদে উত্থাপন করেছি। শুধু উত্থাপনই করিনি এটি নির্মাণের জন্য আমার প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি, এটির সমীক্ষা শেষ হয়ে সেতুটি এলজিইডির প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। প্রক্রিয়া একটি সময় সাপেক্ষ বিষয়। আমি আশাবাদী অচিরেই সুরমা নদীর উপরে ধারারগাঁও হালুয়ারঘাট সেতুটি আলোর মুখ দেখবে। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন, আপনাদেরকে সাথে নিয়েই আগামী দিনে জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নকে একটি উন্নত ইউনিয়নে গড়ে তুলবো, ইনশাআল্লাহ।

জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের ভৈরবহাটি বিজিবি ক্যাম্পের পয়েন্টে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রবীণ মুরব্বি আব্দুল বারিক মাস্টারের সভাপতিত্বে ও জাতীয় ছাত্র সমাজ নেতা রুবেল মিয়ার সঞ্চালনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জাহাঙ্গীর নগর ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ন আহবায়ক রসিদ আহাম্মদ, নারায়ণতলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাদার রিংকু, সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব মনির উদ্দিন মনির, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সজ্জাদুর রহমান সাজু, সুরমা ইউপি জাপার আহবায়ক সিরাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য বাচ্চু মিয়া, জাপা নেতা শুকুর আলী।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় যুব সংহতির যুগ্ন আহবায়ক জসিম উদ্দিন, সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় স্বেচ্চাসেবক পার্টির সাধারন সম্পাদক সাজিদুর রহমান সাজিদ, জাহাঙ্গীরনগর ইউপি জাপার যুগ্ন আহবায়ক এরশাদ মিয়া, জাহাঙ্গীরনগর ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য জাপা নেত্রী শাহিনা বেগম, সংরক্ষিত ইউপি সদস্য পিয়ারা বেগম, জাপা নেতা মইনুদ্দীন, এমরান আহমদ, জব্বার মিয়া, সাবেক ছাত্র নেতা শাহীন মিন্টু, জিয়ানুর হক প্রমূখ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/শংকর দত্ত/এসএম

সুনামগঞ্জ,পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ,সংসদ,সদস্য,দেশ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close