• রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
  • ||

মোটরসাইকেল কিনে না দেয়ায় ফেসবুক লাইভে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

প্রকাশ:  ২১ জুলাই ২০২২, ১৭:২২
জামালপুর প্রতিনিধি

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে বাবা-মা মোটরসাইকেল কিনে দিতে দেরি করায় প্রথমে ফেসবুকে পোষ্ট ও পরে ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা করেছে এসএসসি পরীক্ষার্থী কিশোর হানিফ পালোয়ান (১৬)। বুধবার রাতে উপজেলা পরিষদের আবাসিক কলোনিতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কিশোর উপজেলার সাতপোয়া ইউনিয়নের চর সরিষাবাড়ী গ্রামের ট্রাক চালক সাহের পালোয়ানের ছেলে। সরিষাবাড়ী রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সে আসন্ন এসএসসি পরিক্ষার্থী ছিলো।

পারিবারিক সুত্র জানায়, হানিফ পালোয়ান মোটরসাইকেলের প্রতি ব্যাপক আগ্রহী ছিলো। কিছুদিন আগে তার পরিবার পুরাতন একটি মোটরসাইকেল কিনেও দেয়। কিন্তু শখ ছিলো নতুন মোটরসাইকেলের। বাবা-মা টাকা জোগাড়ের চেষ্টা করছিলো, কিন্তু মোটর সাইকেল কিনে দিতে দেরি হওয়ায় বুধবার রাত ১০টায় দিকে সে ফেসবুকে স্ট্যাটাজ দেয় যে, তার নতুন মোটরসাইকেলের খুব ইচ্ছা ছিলো, কিন্তু মা-বাবা কিনে দেয়নি। তাই সে দুনিয়া থেকে বিদায় নিচ্ছে এবং তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। এ স্ট্যাটাসের কিছুক্ষণ পর সে উপজেলা পরিষদের আবাসিক কলোনির ভাড়া বাসায় ফেসবুক লাইভে গিয়ে ফাঁসিতে ঝুলতে থাকে। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত হানিফ পালোয়ানের চাচা শাহীনুর রহমান বলেন, ছেলেটি বাবা-মায়ের খুবই আদরের ছিলো। যখন যা আবদার করতো তাই পূরণ করা হতো। কিন্তু মোটরসাইকেল যেহেতু অনেক টাকার ব্যাপার, তাই টাকা জোগাড় করতে বিলম্ব হওয়ায় বাবা-মার সাথে অভিমান করে সে আত্মহত্যা করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. দেবাশীষ রাজবংশী বলেন, ওই কিশোরকে রাত সাড়ে ১০টায় দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনে পরিবার। কিন্তু এরআগেই সে মারা যায়।

সরিষাবাড়ী থানার পুলিশ উপপরিদর্শক মুর্শেদ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

পূর্বপশ্চিম- মোস্তাক/ এনই

জামালপুর,আত্মহত্যা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close