• শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯
  • ||

কর্মসূচির কাজ বন্ধ করে শ্রমিক নিয়ে মেম্বারের মানববন্ধন

প্রকাশ:  ১৪ মে ২০২২, ২৩:৪৪ | আপডেট : ১৫ মে ২০২২, ০০:১৫
যশোর প্রতিনিধি

যশোরের মনিরামপুরে কর্মসূচির কাজ বন্ধ করে শ্রমিকদের দিয়ে নিজের পক্ষে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করিয়েছেন এক ইউপি সদস্য।

শনিবার (১৪ মে) দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত উপজেলার মশ্মিমনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপির) ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আজব আলী কর্মসূচির ৪৪ জন শ্রমিক দিয়ে এ সমাবেশ করান।

কর্মসূচির শ্রমিক ছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের কয়েকজন ইউপি সদস্য ও এলাকাবাসী সমাবেশে অংশ নেন। কর্মসূচির শ্রমিক দিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করানোর কথা স্বীকার করেছেন মেম্বর আজব আলীসহ প্রকল্পের সভাপতি ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সনদ দত্ত।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আজব আলী টানা দুবার মশ্মিমনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর (নোয়ালী-ভরতপুর) ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। বিভিন্ন ভাতার নামে টাকা আদায়সহ তার বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে স্থানীয় কয়েকজন গত কদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুকে) নানা মন্তব্য করে আসছেন। তার প্রতিবাদে শনিবার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন মেম্বর আজব আলী। সে মানববন্ধনে নিজের পক্ষে জনসমর্থন দেখাতে কর্মসূচির শ্রমিকদের তিনি অংশগ্রহণ করান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শ্রমিক বলেন, সকাল সাতটা থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত আমরা দৈনিক রাস্তায় কাজ করি। বিনিময়ে সরকার ৪০০ টাকা করে দেয়। মেম্বারদের হাত দিয়ে আমরা কাজের সুযোগ পাই। তারা যেভাবে বলেন আমাদের সেভাবে কাজ করা লাগে।

শ্রমিকরা বলছেন, ১,২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড মিলে লক্ষিকান্তপুর গ্রামের রাস্তায় আমরা ৪৪ জন কাজ করছিলাম। শনিবার কাজ চলা অবস্থায় হঠাৎ তিন মেম্বর একসাথে এসে আমাদের কাজ বন্ধ করিয়ে দেন। এরপর রাস্তায় দাঁড় করিয়ে হাতে ব্যানার ধরিয়ে দেন।

শ্রমিকরা বলেন, শুনিছি, আজব মেম্বারকে নিয়ে এলাকায় কারা কারা কি লিখতেছে। তাই আমাগের রাস্তায় দাঁড় করায়ে দেছে। আমরা এর বেশি কিছু জানি নে।

ইউপি সদস্য আজব আলী বলেন, এলাকা থেকে আমি মাদক দূর করতে চাচ্ছি। এজন্য কিছু লোক আমাকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে। তার প্রতিবাদে শনিবার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে। কর্মসূচির শ্রমিক, পাঁচ জন মেম্বার ও এলাকাবাসী মিলে ৩০০-৪০০ জন লোক এতে অংশ নেয়।

মশ্মিমনগর ইউনিয়নের ১,২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ৪০ দিনের কর্মসূচি প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্য সনদ দত্ত বলেন, তিন ওয়ার্ডের শ্রমিকরা একসাথে কাজ করে। শনিবার আমার ওয়ার্ডে কাজ চলছিল। যে রাস্তায় কাজ হচ্ছিল সেখানে মানববন্ধন হয়েছে। আমরা কয়েকজন মেম্বার মানববন্ধনের সময় ছিলাম। সাংবাদিকরা আসায় কর্মসূচি কাজের বিরতির সময় শ্রমিকরা মানববন্ধনে যোগ দেয়। কয়েক মিনিটপর আমি শ্রমিকদের মাটি কাটার কাজে লাগিয়ে দিই।

মশ্মিমনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন বলেন, শনিবার কর্মসূচির কাজ দেখতে যেতে পারিনি। শ্রমিকদের দিয়ে মানববন্ধনের বিষয়টি আমি জানি না। যদি শ্রমিকদের দিয়ে মেম্বর আজব আলী মানববন্ধন করিয়ে থাকেন তাহলে তিনি ঠিক করেননি। আমি মেম্বরকে ডেকে সতর্ক করে দেব।

৪০ দিনের কর্মসূচি কাজের প্রকল্পের উপজেলা কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। কর্মসূচির কাজ বন্ধ করিয়ে শ্রমিকদের দিয়ে মেম্বরের মানববন্ধনের বিষয়ে মোবাইলে ইউএনও সৈয়দ জাকির হাসানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মোবাইলে আমি এ বিষয়ে কোনো কথা বলব না।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এএইচ/এনজে

শ্রমিক,মেম্বার,মানববন্ধন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close