• মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯
  • ||

‘অল্প টাকা’য় রোগী বহনকে কেন্দ্র করে দিনাজপুরে পরিবহন ধর্মঘট

প্রকাশ:  ২১ এপ্রিল ২০২২, ১৪:৪৩ | আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২২, ১৪:৫২
দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সে অল্প টাকায় রোগী বহনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্সের সাত চালককে আটক এবং চাউলিয়াপট্টি বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী ওঠানামা নিয়ে এক শ্রমিক নেতাকে মারধরের প্রতিবাদে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন মালিক-শ্রমিকেরা।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) সকালে দিনাজপুর জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন এ ধর্মঘটের ডাক দেয়।

সকাল থেকেই দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ, দিনাজপর-রংপুর, দিনাজপুর ঠাকুরগাঁও মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে দিনাজপুর বাস মালিক-শ্রমিকরা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা।

আটক করা চালকদের মুক্তি না দেওয়া এবং শ্রমিকনেতাকে মারধরের ঘটনায় বিচার না হওয়া পর্যন্ত এ ধর্মঘট চলবে বলে জানিয়েছে পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন।

এদিকে বুধবার দিবাগত রাতে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পক্ষে ওয়ার্ড মাস্টার মো. ফারুকুল আলম মামুন ও পরিবহন শ্রমিকদের পক্ষে বালুয়াডাঙ্গা স্ট্যান্ড শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. মজিবর রহমান ডাব্লু পৃথক দুটি মামলা করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জের এক রোগীকে ৮০০ টাকায় পৌঁছে দেয় হাসপাতালের সরকারি অ্যাম্বুলেন্স। এই অল্প টাকায় সরকারি অ্যাম্বুলেন্স রোগী পৌঁছে দেওয়ার খবর বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্সচালক সমিতির মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সচালককে মারধর করে বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স চালকরা। এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লিখিতভাবে অভিযোগ করলে বুধবার রাতে অভিযুক্ত সাতজন অ্যাম্বুলেন্স চালককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এদিকে শ্রমিকদের অভিযোগ, বুধবার বিকালে দিনাজপুর শহরের বালুয়াডাঙ্গা বাসস্টান্ডে এক যাত্রীকে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে বাসে উঠিয়ে নেন এক বাস হেলপার। এ সময় অটোরিকশারচালকরা সেই হেলপারকে মারধর করেন। ঘটনাটি সমাধানের জন্য বাসস্ট্যান্ড শাখা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর করেন অটোরিকশাচালকরা। এক পর্যায়ে ডাবলুর মাথায় আঘাত করা হয়।

বাসচালক মিষ্টু মিয়া বলেন, প্রতিনিয়ত অটোরিকশাচালকরা খারাপ ব্যবহার করেন। তাদের এমন আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। এই ঘটনার বিচার হওয়া খুব প্রয়োজন।

বাসচালক রবিউল ইসলাম বলেন, আমাদের সহকর্মী ও নেতাকে মারধর করায় আমরা বাস চলাচল বন্ধ রেখেছি। দিনাজপুরের সব স্থানেই এমন কর্মসূচি চলছে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন জানান, মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকায় কয়েকজন অ্যাম্বুলেন্সচালক বিশৃঙ্খলা করছিলেন- এমন খবর পেয়ে সাত চালককে আটক করে পুলিশ। পরে অ্যাম্বুলেন্স চালকেরা সড়ক আবরোধ করেন। এরপর পুলিশ বাধা দিয়ে অবরোধ তুলে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শ্রমিকেরা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে টার্মিনাল, কলেজ মোড়, বালুয়াডাঙ্গা মোড়, মেডিকেল মোড়ে ব্যারিকেড দিয়ে সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়।

দিনাজপুর জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, আমরা অন্যায়ের বিচার চাই। কাউকে পাশ কাটিয়ে এর সমাধান আনতে চাইলে আমরা তা মেনে নেব না। ঘটনার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত জেলার সব রুটের সব ধরনের পরিবহন বন্ধ থাকবে।

পূর্বপশ্চিম/এনএন

ধর্মঘট,দিনাজপুর
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close