• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
  • ||

মাদ্রাসাছাত্রকে শারীরিক নির্যাতন, হাসপাতালে আর্তনাদ

প্রকাশ:  ১৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:১২
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মাদ্রাসাছাত্র আরাফাত হোসেন ওরফে মুরাদ (১২) ব্যথার যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। মাদ্রাসায় আবাসিকে থাকাকালীন রহস্যজনকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয় সে। তবে কিভাবে ঘটনাটি ঘটেছে সে বিষয়ে কিছুই বলছে না এ শিশু শিক্ষার্থী। হাসপাতালের বেডে শুয়ে শুধু আত্মনাদ করে যাচ্ছে মুরাদ।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে তার পরিবারের সদস্যরা দাবি করতেছে, শিশুটিকে শারিরীক নির্যাতনের পাশাপাশি কোনো ধরণের ক্যামিক্যাল তার মাথা ও পায়ে ছিটানো হয়েছে। এতে সে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে।

খবর পেয়ে বুধবার (১২ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১০ টার দিকে শহর পুলিশ ফাঁড়ির একটি টিম হাসপাতাল ও মাদ্রাসা পরিদর্শন করে।

মুরাদ সদর উপজেলার ভাঙ্গাখাঁ ইউনিয়নের হোগলডগী গ্রামের জাফর আহম্মদের ছেলে। সে জকসিন উত্তর বাজারে 'দারুল মা-আলিফ হেফজ মাদ্রাসার হাফেজ বিভাগের শিক্ষার্থী'।

শিক্ষার্থীর মা মারজাহান বেগম জানান, তার ছেলে মুরাদ মাদ্রাসার আবাসিকে থেকে হাফেজ বিভাগে পড়তো। বুধবার সন্ধ্যার আগে শারীরিক ব্যাথা নিয়ে সে বাড়িতে চলে যায়। মুরাদকে মাদ্রাসায় নিয়ে এসে শিক্ষকদের কাছে জানতে চাইলে কেউ কিছু বলতে পারেনি। নির্যাতনের কারণে ছেলেটিও কিছুই বলছে না। অজানা কারণে সে খুব আতঙ্কিত হয়ে আছে। বিষয়টি থানায় অবগত করা হয়েছে।

মাদ্রাসার শিক্ষক কারী মাকছুদুর রহমান জানান, মুরাদ তাদের সাথে আসরের নামাজ পড়েছে৷ মাগরিবের আগে সে সকলের অগোচরে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে যায়। তবে কিভাবে তার শরীরে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে, তা মাদ্রাসার শিক্ষক বা শিক্ষার্থী কেউ অবগত নয়। এ বিষয়ে সকল শিক্ষার্থীকে জিজ্ঞাসবাদ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসীম উদ্দীন বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতাল এবং মাদ্রাসায় পুলিশ পাঠিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএস

লক্ষ্মীপুর,মাদ্রাসাছাত্র,শারীরিক নির্যাতন,হাসপাতাল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close