• শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||

লঞ্চ ডুবিয়ে দেয়া এমপির জাহাজ জব্দ, ১৪ কর্মচারী আটক

প্রকাশ:  ০৮ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৩৫ | আপডেট : ০৮ এপ্রিল ২০২১, ২১:২৬
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে এমএল সাবিত আল-হাসান লঞ্চ ডুবির ঘটনায় ধাক্কা দেয়া কার্গো জাহাজটিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের মেঘনা নদী থেকে জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। জেলার গজারিয়া উপজেলার নয়ানগর গ্রাম সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে এমভি এসকেএল-৩ নামে কার্গো জাহাজকে আটক করে। এ সময় জাহাজের ১৪ স্টাফ আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের নাম জানা যায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জাহাজটির মালিক বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান এসকে লজিস্টিকস।

গজারিয়া নৌ-পুলিশের ইনচার্জ আব্দুস সালাম জানান, আটক করা কার্গো জাহাজ ও জাহাজের স্টাফদের বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নৌ-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে কোস্টগার্ড।

এর আগে নয়ানগর গ্রাম সংলগ্ন মেঘনা নদীতে নোঙর করা অবস্থায় পাগলাস্থ কোস্টগার্ডের সদস্যরা ঘাতক জাহাজকে আটক করে।

কোস্টগার্ড পাগলা স্টেশনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট আশমাদুল ইসলাম বলেন, যাত্রীবাহী লঞ্চটিকে ধাক্কা দেওয়ার পর দ্রুত কার্গো জাহাজটি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় চলে যায়। দুর্ঘটনার কিছুক্ষণ পর ঝড় শুরু হয়। কিন্তু ঝড়ের মধ্যেও কার্গোটি থামেনি। দ্রুত গতিতে কার্গোটি পালাতে থাকে। এরপর আটক ঠেকাতে কার্গোটির রং দ্রুততম সময়ের মধ্যে বদলে ফেলা হয়। বদলে ফেলা কার্গোটি গজারিয়ার কোস্টগার্ড স্টেশনের কাছাকাছি নোঙর করে রাখা হয়। সেখান থেকে কার্গো জাহাজ এসকেএল-৩ আটক করা হয়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঘাতক জাহাজের রং পাল্টানো হয়েছে। নয়ানগর গ্রাম সংলগ্ন মেঘনায় নোঙর করে ওই রং পাল্টানো হয়। নোঙর করা অবস্থায় পাগলা কোস্টগার্ড স্টেশনের টহলরত টিমের সদস্যরা জাহাজকে আটক করতে সক্ষম হয়।

প্রসঙ্গত, গেল ৪ এপ্রিল সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জের কয়লাঘাট সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় এমএল সাবিত আল-হাসান নামে লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটে। এ নৌ-দুর্ঘটনায় সর্বশেষ ৩৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত যাত্রীদের অধিকাংশই মুন্সীগঞ্জের।

এই ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে কার্গো জাহাজের চালকসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ বন্দর থানায় মামলা করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। তবে মামলায় কার্গো জাহাজ, এর চালক বা মালিক; কারোই নাম উল্লেখ করা হয়নি বলে জানান বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা।

এজাহারে কেন কার্গো জাহাজ এসকেএল-৩ এর নাম নেই, জানতে চাইলে মামলার বাদী বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা বাবুলাল বৈদ্য বলেন, ভিডিও ফুটেজে কোথাও ওই জাহাজের নাম দেখা যায়নি। নিশ্চিত না হওয়ায় অজ্ঞাত কার্গো জাহাজের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তদন্তে অভিযুক্ত কার্গো জাহাজের নাম বেরিয়ে আসবে।

তবে ঘটনার পর থেকে পুলিশ, লঞ্চ মালিক সমিতি ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ধাক্কা দেওয়া কার্গোটির নাম এমভি এসকেএল-৩, যার রেজিস্ট্রেশন নম্বর এম-০১-২৬৪৩।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএস

নারায়ণগঞ্জ,শীতলক্ষ্যা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close