• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭
  • ||

নারী সহকর্মীকে কুপ্রস্তাব, অফিসে জড়িয়ে ধরার চেষ্টা গণপূর্তের আবুলের

প্রকাশ:  ১২ জানুয়ারি ২০২১, ০১:৪১
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
আবুল হাসান

সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের উচ্চমান সহকারী আবুল হাসানের বিরুদ্ধে ওই অফিসের এক নারীকে শ্লীলতাহানী প্রচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। অফিস চলাকালীন ওই নারী সহকর্মীকে আবুল হাসান তার রুমে ডেকে নিয়ে কুপ্রস্তাব দেন এবং জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ।

এদিকে গণপূর্ত বিভাগের ওই উচ্চমান সহকারী আবুল হাসান এ অভিযোগ থেকে রেহায় পেতে বিভিন্ন জায়গায় ধর্না দিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানা গেছে।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) রাতে সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘অভিযোগ পাওয়ার পর তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।’

গত ৩১ ডিসেম্বর দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে উল্লেখ করে রোববার (১০ জানুয়ারি) বিকালে নির্যাতিত ওই নারী আবুল হাসানের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন- সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের উচ্চমান সহকারী মো. আবুল হাসান প্রায়ই তাকে বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে তিনি অফিসের কর্মকর্তাদের কিছু বলতে পারেননি। তবে অফিসের অন্য কয়েকজন নারী সহকর্মীকে তিনি বিষয়টি জানান।

গত ৩১ ডিসেম্বর বেলা ১২টার দিকে অফিসের হিসাবরক্ষক হাসানুর রহমানের মাধ্যমে উচ্চমান সহকারী মো. আবুল হাসান ওই নারীকে তার রুমে কাজের কথা বলে ডেকে পাঠান। দাপ্তরিক কাজ সেরে ওই নারী বেলা সোয়া ১টার দিকে উচ্চমান সহকারী আবুল হাসানের অফিসকক্ষে গেলে তাকে কুপ্রস্তাব দেন আবুল হাসান। এক পর্যায়ে অফিস কক্ষে তাকে জড়িয়ে ধরার চেষ্টাও করেন। এসময় তার চিৎকারে অন‌্য সহকর্মীরা সেখানে হাজির হন।

এদিকে ওই অফিসের অন‌্য কর্তকর্তারা জানান, ঘটনার পর নির্যাতনের শিকার ওই নারী অফিসের মধ্যেই জুতা খুলে আবুল হাসানের মুখে নিক্ষেপ করেন। পরবর্তীতে নির্বাহী প্রকৌশলীকে লিখিতভাবে জানিয়ে এ ঘটনার প্রতিকার চান। একইসঙ্গে নিজের নিরাপত্তা চান।

এ বিষয়ে কথা বলতে সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের উচ্চমান সহকারী আবুল হাসান বলেন, ‘আমার পাশে লোকজন রয়েছে। এখন কথা বলতে পারছি না। পরে কথা হবে।’ এরপর তিনি ফোনের লাইনটি বিচ্ছিন্ন করে দেন।

সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই নারী সহকর্মীর লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর সাতক্ষীরা গণপূর্ত বিভাগের স্টাফ অফিসার ফিরোজ আলীকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কমিটি তদন্ত রিপোর্ট জমা দেবে।

তিনি বলেন, ‘উচ্চমান সহকারী আবুল হাসান লিখিতভাবে পাল্টা একটি অভিযোগ করেছেন। দুটি অভিযোগই তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্ত রিপোর্ট আসার পর এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সাতক্ষীরা সদর থানার (ওসি) তদন্ত বোরহান উদ্দীন জানান, এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়েছে কি না তা তার জানা নেই।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

সাতক্ষীরা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close