• বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
  • ||

প্রাথমিকের শিক্ষিকা ধর্ষণের শিকার

প্রকাশ:  ২২ নভেম্বর ২০২০, ১৭:৩১ | আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০২০, ১৭:৪৭
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় প্রাথমিকের এক সহকারী শিক্ষিকা ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষক বিপুল কুমার বাড়ৈর বিরুদ্ধে শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। বিপুল কুমার বাড়ৈ বর্তমানে মাদারীপুরের মুকসুদপুর উপজেলায় কর্মরত আছেন।

মামলার প্রধান সাক্ষী হলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা কৃষ্ণ প্রষাদ মজুমদার।

বাদীর আরজি মতে, গত ২৫ জুলাই রাতে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় উপজেলার পশ্চিমপাড় কলেজের দক্ষিণ পাশে মামলার বাদির ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার প্রাথমিকের সহকারী স্কুল শিক্ষিকা বাদি হয়ে সোমবার (২ নভেম্বর) গোপালগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে একটি ধর্ষণের পিটিশন করেন, যাহার নং ২৯১ তারিখ ২/১১/২০২০ইং।

পিটিশনে মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার সাতপাড় গ্রামের বিনোদ চন্দ্র বাড়ৈর ছেলে ও মুকসুদপুর উপজেলায় কর্মরত প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষক বিপুল কুমার বাড়ৈকে (৪০) আসামি করা হয় এবং কলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণ প্রষাদ মজুমদারকে প্রধান সাক্ষী করা হয় এবং সাক্ষীরা ঘটনা প্রমাণ করিবেন বলে তার আরজিতে উল্লেখ করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, আদালত বাদির পিটশনটি আমলে নিয়ে একটি নিয়মিত মামলা হিসেবে রুজু করতে কোটালীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দিলে অফিসার ইনচার্জ শনিবার (৭ নভেম্বর) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ সনের ৩ এর ৯ (১) ধারায় একটি মামলা রুজু করেন। কোটালীপাড়া থানার মামলা নং ৩।

এ ব্যাপারে মামলার প্রধান সাক্ষী কৃষ্ণ প্রষাদ মজুমদার রোববার বলেন, ধর্ষণের আমি কিছুই জানি না এবং আমাকে না জানিয়েই মামলায় সাক্ষী রাখা হয়েছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এনএন

ধর্ষণের শিকার,প্রাথমিকের শিক্ষিকা,শিক্ষক,গোপালগঞ্জ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

ঘটনা পরিক্রমা : শিক্ষক

cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close