• মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

প্রতারণা করতে অফিস খুলেছিলেন তারা

প্রকাশ:  ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১৫
সিলেট প্রতিনিধি

ডেপুটি ডিরেক্টরের বেতন ৪২ হাজার, জেনারেল ম্যানেজার ৪০ হাজার- এমন অন্তত ৯টি পদে লোভনীয় বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে জরুরি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল একটি চক্র। সর্বশেষ এমনই একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিএসডি কমার্শিয়াল লিমিটেড নামের একটি ভুয়া কোম্পানি সিলেটে এ প্রতারণা চালিয়ে আসছিল, যার দুই সদস্য র‌্যাবের খাঁচায় বন্দী হয়েছে। চক্রটি চাকরির প্রলোভন দেখাচ্ছে এমনটি সন্দেহ হলে প্রতারিতদের মধ্য থেকে পুলিশকে অবগত করা হলে তারা অভিযান চালিয়েও কাউকে আটক করতে পারেনি। পরবর্তীতে পালিয়ে যাওয়ার সময় দুইজনেক আটক করতে সক্ষম হয় র‌্যাব।

প্রতারণার শিকার দক্ষিণ সুরমা কুচাইয়ের মামুন চৌধুরী জানান, তিনি চাকরির একটি বিজ্ঞপ্তি দেখে নগরীর শিবগঞ্জে বিএসডি কমার্শিয়াল লিমিটেড কার্যালয়ে যান। গিয়ে দেখেন ভাড়াটিয়া ফ্ল্যাটে জাঁকজমকপূর্ণ অফিস। তিনি সরল বিশ্বাসে একটি পদে আবেদন করেন। গত সপ্তাহে গিয়ে দেখেন কার্যালটির সামনে শতাধিক চাকরি প্রত্যাশী তরুণ-তরুণীর ভিড়। এদের অনেককে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। তবে এর আগেই মামুনের কাছ থেকে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা, আইডি কার্ড বাবদ কয়েক হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় কার্যালয়ে অবস্থানরত চাকরিদাতারা। কিন্তু ওইদিন অন্যদের ভেতরে প্রবেশে বাধার কারণে তার সন্দেহ হয় এবং জানতে পারেন এ ধরেনর কথা বলে সবার কাছ থেকেই টাকা নেয়া হয়েছে। পরে সবাই মতামত দেন, চাকরি হলে কোম্পানির পক্ষ থেকেই সবকিছু করার কথা। টাকা নেয়ার বিষয়টি সন্দেহজনক।

বিষয়টি একজন সাংবাদিকেরও নজরে আসে। তার স্ত্রীও সেখানে চাকরি প্রত্যাশী ছিলেন। তিনি এ ধরনের সন্দেহের কথা পুলিশের উচ্চ পর্যায়ে অবগত করেন। একপর্যায়ে এ বিষয়ে অনুসন্ধান ও ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয় শাহপরাণ (রহ.) থানা পুলিশকে। খবর পেয়ে থানার ওসি আবদুল কাইয়ূম চৌধুরীর নেতৃত্বে পুলিশ যাওয়ার আগেই তারা সটেক যায়। ভাড়াটিয়া অফিসের মালিকের সঙ্গে কথা বলেও পুলিশ কোন তথ্য পায়নি বলে দাবি ওসির। এতে অনেকটা হতাশ হয়ে পড়েন প্রতারণার শিকার চাকরি প্রত্যাশীরা। পরে তাদের বিষয়টি মামুনসহ কয়েকজন র‌্যাবকে অবগত করেন।

বুধবার কোন এক সময় অফিস থেকে মালামাল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার পথে র‌্যাবের অভিযানে আটক হয় এ চক্রের দুই সদস্য। এরা হলো- কুমিল্লা জেলার বুড়িচং থানাধীন জিয়াপুর রাইচ মেইল বাড়ী গ্রামের মোবারক হোসেনের পুত্র সাইফুল ইসলাম (৩৬) ও ঢাকা জেলার দোহার থানাধীন চর নাটাখোলা গ্রামের হাফিজ খানের মেয়ে সাগরী আক্তার (৩০)।

র‌্যাব-৯ এর এএসপি (গণমাধ্যম) ওবাইন বলেন, সিনিয়র এএসপি নাহিদ হাসান ও এএসপি একেএম কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি দল এ অভিযান পরিচালনা করেন। গ্রেফতারকৃতরা নিরীহ ও বেকার যুবকদের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে নামে বেনামে একাধিক ভুয়া প্রতিষ্ঠান খুলেছে। এছাড়া চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

জানতে চাইলে শাহপরাণ (রহ.) থানার ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, অভিযােগ পেয়ে আমরা প্রথমে অভিযান করেছিলাম। তখন তারা সতর্ক হয়ে যায়। বুধবার পালানোর সময় খবর পেয়ে র‌্যাব দুজনকে আটক করে। এ ঘটনায় মামুন চৌধুরী বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

সিলেট
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close