• শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

ধনপুর-তরংগীয়া সড়ক যেন মরণ ফাঁদ 

প্রকাশ:  ০৯ আগস্ট ২০২০, ১২:২০
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের তরংগীয়া পয়েন্ট হতে ধনপুর বাজার পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিতে গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে মেরামত কাজ না হওয়ায় সড়ক নয় যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি দিয়ে মিনি ট্রাক, পিকআপ, সিএনজি, অটোরিক্সাসহ বিভিন্ন ধরনের শতাধিক যানবাহন ও প্রায় পাঁচ শতাধিক বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার মানুষ উপজেলা ও জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ করছে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। ফলে সবার মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, জেলার সীমান্তবর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের তরংগীয়া পয়েন্ট থেকে ধনপুর আছমত আলী সাহেবের বাড়ি পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিতে গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে মেরামত কাজ না হওয়ায় দিনে দিনে সড়কটি সড়ক নয় যেন মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে।

এ সড়কটির বিভিন্ন অংশে ব্লক সলিং উঠে গিয়ে ছোট-খাটো গর্ত, সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি,রাস্তার রড ওঠে উপরের দিকে থাকার কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছে। আর বিকল্প সড়ক না থাকায় চরম দুর্ভোগ সহ্য করে প্রতিদিন মিনি ট্রাক, পিকআপ, সিএনজি, অটোরিক্সাসহ বিভিন্ন ধরনের শতাধিক যানবাহন ও কয়েকটি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করছে।

এ নিয়ে উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের ধনপুর আছমত আলী পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে ভাঙাচুরা সড়কের ছবি দিয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। শুধু এই শিক্ষক নয় এলাকাবাসীরা দূর্ভোগ লাগবের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে বার বার জানানোর পরেও তাদের দায়িত্বহীনতা ও খামখেয়ালি কারণে মেরামত কাজ না হওয়ায় সবার মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, সমাজসেবক, বিশ্বম্ভরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ শাহ আলম বলেন, আমরা এ রাস্তা সংস্করণের জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান কে বার বার বলেছি। কোনও কাজ হয় নি। দুঃখের বিষয় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ হারুনুর রশিদ দুলাল উনার বাড়ি থেকে উপজেলা সদরে যাওয়ার এক মাত্র রাস্তা এটি। বর্তমানে ভাঙাচুড়া এই রাস্তায় প্রতিদিন এই ঘটছে দুর্ঘটনা।

ধনপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান হযরত আলী সোহেল কালাচাঁন বলেন, আমি প্রায় ২০ বছর আগে কাজ করেছিলাম তারপর থেকে কোনও প্রকার মেরামত কাজ করা হয়নি। আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জনসাধারণের দূর্ভোগের বিষয়টি একাধিকবার জানিয়েছি। আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। নতুন বাজেট পেলেই মেরামত কাজ শুরু করব।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সফর উদ্দিন জানান, আমি জেলার মিটিংয়ে এ দূর্ভোগের বিষয়ে উপস্থাপন করেছি এবং জনসাধারণের সুবিধার্থে দ্রুত কাজ করার জন্য চেষ্টা করছি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

ফাঁদ,মরণ,ধনপুর-তরংগীয়া,সড়ক,সুনামগঞ্জ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close