• সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ২২ আষাঢ় ১৪২৭
  • ||

বিয়ের মাস না পেরুতেই নদীতে ডুবে ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু

প্রকাশ:  ২৯ মে ২০২০, ২১:৪৭
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ায় গড়াই নদীতে গোসলে নেমে নিখোঁজ ব্যাংক কর্মকর্তা রাফসান হক খানের (৩০) মরদেহ ১৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দল। বৃহস্পতিবার দুপুরে ৫ বন্ধু নদীতে গোসলে নামলে নিখোঁজ হন রাফসান। এরপর টানা অভিযান চালিয়ে শুক্রবার (২৮ মে) সকাল ৮টার দিকে তার মরদেহ খুঁজে পাওয়া যায়।

রাফসান কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া এলাকার রেজাউল হক খানের ছেলে। তিনি মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক ঈশ্বরদী শাখায় ক্যাশ অফিসার পদে কর্মরত ছিলেন। রাফসানের পরিবারের লোকজন জানায়, ঈদের ছুটিতে রাফসান তার কর্মস্থল ঈশ্বরদী থেকে কুষ্টিয়া এসেছিলেন। চলতি মাসের ২ তারিখে তিনি বিয়ে করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার দিকে ঘোড়াঘাট এলাকায় গড়াই নদে রাফসান তার পাঁচ বন্ধু রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক হাসিবুর রশিদ তামিম, ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ, কুষ্টিয়া স্যামসাং শোরুমের ম্যানেজার ফয়সাল ও আব্দুর রশিদদের সঙ্গে গোসল করতে নামেন। এক পর্যায়ে তামিম ও রাফসান নদীর একটু গভীরে গেলে হঠাৎ করে তারা তলিয়ে যায়। এ সময় অন্য বন্ধুদের চিৎকারে স্থানীয় মাঝিরা গিয়ে তামিমকে টেনে তুললেও রাফসানকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

রাফসানের বন্ধু হাসিবুর বলেন, নদীতে নামার পর বাকিরা একটু কম পানিতে ছিল। রাফসান আর আমি এক সঙ্গেই ছিলাম; হঠাৎ করে আমাদের পায়ের নিচের বালু সরে যায়। সাঁতার না জানায় আমি ও রাফসান তলিয়ে যাই। এ সময় স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করতে পারলেও রাফসানকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

কুষ্টিয়া ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আলী সাজ্জাদ বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে রাফসানের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে ফায়ার সার্ভিস। পরে রাতে খুলনা থেকে ডুবুরি দল এসেও উদ্ধার অভিযানে যোগ দেয়। কিন্তু গভীর রাত পর্যন্তও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। ভোরে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘটনাস্থলের ভাটিতে থাকা গড়াই খনন প্রকল্পের ড্রেজারের তলদেশ থেকে রাফসানকে উদ্ধার করা হয়।

পরে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাফসানকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান সাজ্জাদ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

কুষ্টিয়া
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close