• শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

করোনা যুদ্ধে চট্টগ্রামকে বাঁচাতে লড়ছেন যারা

প্রকাশ:  ২৯ মার্চ ২০২০, ০২:৩১
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি
করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বাসা ও রাস্তায় জীবাণূনাশক ছিটাচ্ছেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা। ছবি: পূর্বপশ্চিম

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কার্যত অচল চট্টগ্রামের অধিবাসীরা জীবন বাঁচাতে সময় কাটাচ্ছেন ঘরবন্দি হয়ে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিল্প কারখানা সব বন্ধ মহামারীতে। কেবল কিছু মানুষ মৃত্যুভয়কে উপেক্ষা করে দিবারাত্রি লড়ছেন জীবাণুনাশকসহ নানা সরঞ্জাম নিয়ে। এ লড়াইয়ে সামিল হয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) সাড়ে ছয় হাজার কর্মীও। যাদের নেতৃত্ব দিয়ে দিন-রাত কাজ করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

করোনাভাইরাসের কারণে ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। সরকারি, বেসরকারি ও আধা সরকারি অফিসের সবাই ছুটিতে থাকলেও সিটি করপোরেশনের ৪ হাজার পরিচ্ছন্নতাকর্মী দৈনিক রুটিন কাজের বাইরে গিয়ে বাসা-বাড়ির আশপাশের জীবাণুনাশক ছিটাচ্ছেন। কোথাও যাতে আবর্জনা ভাগাড় হয়ে না যায়, সে ব্যাপারে মেয়রের নির্দেশনা বাস্তবায়নে নগরবাসীকে বাঁচাতে কাজ করে যাচ্ছেন অকুতোভয় এসব সেবকরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন পূর্বপশ্চিমকে বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশন নগরবাসীর সেবায় সব ধরণের কাজ করে যাবে। রোববার থেকে ৪১টি ওয়ার্ডে ৮৪ হাজার পরিবারকে চাল-ডাল প্রদান করা হবে।

এছাড়া মেয়রের ব্যক্তি উদ্যোগে ৩ হাজার পরিবারকে নিত্য প্রয়োজনীয় খাবার ও আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

চসিকের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল মান্নান যীশু জানান, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে চট্টলাবাসীর পাশাপাশি কর্মরত সেবকদের তারা হাত ধোয়ার স্যানিটাইজার ও মাস্ক দিয়েছেন। আগামী বুধবারের মধ্যে তাদের জন্য হ্যান্ড গ্লাভস্ও সরবরাহ করা হবে।

চসিক সূত্র জানায়, সিটি করপোরেশন এলাকার প্রধান প্রধান সড়কে জীবাণুনাশক ছিটানোর কাজে নিয়োজিত রয়েছে চসিকের যান্ত্রিক বিভাগ। ৪২ হাজার লিটার ক্ষমতা সম্পন্ন তিনটি ভাউজারে করে এসব জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। এসময়টায় সিটি করপোরেশনের সকল কার্যক্রম সচল রাখতে কাজ করছে বিভাগটির চালকসহ ৪ হাজার কর্মী।

চসিকের যান্ত্রিক বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক পূর্বপশ্চিমকে বলেন, রোববার থেকে ৪১টি ওয়ার্ডে শুরু হবে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার বিতরণ কর্মসূচি। তাছাড়া সিটি করপোরেশনের সকল যান্ত্রিক সেবা নিশ্চিত রাখতে ঘোষিত সাধারণ ছুটি বাতিল করা হয়েছে। তাছাড়া চসিকের ৪টির ভাউজারের সাথে সেনাবাহিনী এবং ফায়ার সার্ভিসের ভাউজার যুক্ত হয়ে জীবাণুনাশক ছিটাবে কর্পোরেশন এলাকায়।

অন্যদিকে সারাদেশে প্রথমবারের মত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন করোনা রোগীদের ব্যয়ভার বহন করার ঘোষণা দেয়। এতে সিটি করপোরেশনের একটি জেনারেশন হাসপাতালসহ প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিউনিটি সেন্টার খোলা রেখেছে সংস্থাটি। তাই স্বাস্থ্য বিভাগের ৮শ কর্মকর্তা-কর্মচারীও সাধারণ ছুটির বাতিল করা হয়েছে। করোনা রোগীসহ নগরবাসীকে সবধরণের স্বাস্থ্যসেবা দিতে তারা নিবেদিত রয়েছে বলে জানিয়েছেন চসিকের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম উদ্দীন।

তিনি আরও জানান, করোনায় সিটি করপোরেশনের কন্ট্রোলরুম দামপাড়া থেকে চসিক জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। সেখানে সার্বক্ষণিক ডাক্তার, নার্সসহ অন্যান্যরা নগরবাসির সেবায় নিয়োজিত থাকবে। করোনা সংক্রমণ সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য কন্ট্রোলরুমের ০৩১-৬৩৪৫৮৪ নাম্বারে জানানোর জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

অন্যদিকে ঘরবন্দি মানুষের সহায়তায় চসিকের পাশাপাশি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের উদ্যোগে চালু হওয়া ‘ডোর টু ডোর শপ’ প্রশংসা কুড়িয়েছে নগরবাসীর। ঘরবন্দি মানুষদের নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর প্রয়োজন মেটাতে ফোন করলেই বাড়িতে বাড়িতে প্রয়োজনীয় খাবারসহ প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি পৌঁছে দিচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা।

এছাড়া করোনার প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া চট্টগ্রাম মহানগরসহ ১৫টি উপজেলায় দরিদ্র দিনমজুরদের বাড়িতে চাল, ডালসহ শুকনো খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। শনিবার (২৮ মার্চ) সকাল থেকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবং সহকারী কমিশনাররা (ভূমি) স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় নিজ নিজ উপজেলার দিনমজুরদের বাড়ি গিয়ে এসব খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।


পূর্বপশ্চিমবিডি/ডব্লিউএ/কেএম

করোনাভাইরাস,চট্টগ্রাম,চসিক,মেয়র নাছির
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Latest news
close