• বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
  • ||

ভাই-বউয়ের টাকায় ভোট করবেন রেজাউল, শাহাদাতকে খরচ দেবেন বোনেরা

প্রকাশ:  ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:৪০
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী ১৯ লাখ টাকা খরচ করবেন। নির্বাচনি হলফনামায় তিনি জানিয়েছেন, ভোটের জন্য ১৯ লাখ টাকার মধ্যে নিজের আয় থেকে এক লাখ টাকা খরচ করবেন তিনি। স্ত্রী দেবেন পাঁচ লাখ, এক ভাই সাড়ে তিন লাখ এবং অন্য দুই ভাই পাঁচ লাখ টাকা করে দেবেন। অন্যদিকে ডা. শাহাদাত খরচ করবেন ২০ লাখ টাকা। তিনি দুই বোনের কাছ ঋণ করবেন পাঁচ লাখ করে মোট ১০ লাখ টাকা। আর বাকি ১০ লাখ নিজের।

হলফনামার তথ্য থেকে জানা যায়, বিএনপির প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনের ঘাড়ে ঋণের বোঝা রয়েছে। তবে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর ব্যাংক অথবা আর্থিক কোনও প্রতিষ্ঠানে কোনও ঋণ নেই। বিভিন্ন অভিযোগে শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে ৪৮টি মামলা থাকলেও রেজাউল করিম চৌধুরীর নামে কোনও মামলা নেই। নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে জমা দেওয়া দুই প্রার্থীর হলফনামা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

হলফনামার তথ্য অনুযায়ী শাহাদাত বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইন, বিস্ফোরক আইন, সন্ত্রাসবিরোধী আইন, দ্রুত বিচার আইনসহ দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় তার নামে ৪৮টি মামলা আছে। এর মধ্যে ৪৩টি বিচারাধীন। দুটি মামলা উচ্চ আদালতের আদেশে স্থগিত এবং তিনটি তদন্তাধীন আছে। অন্যদিকে রেজাউল করিমের নামে কোনও মামলা নেই।

ডা. শাহাদাত হলফনামায় উল্লেখ করেন, উত্তরা ফাইন্যান্স ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের কাছে তার তিন কোটি দুই লাখ ২৫ হাজার টাকা ঋণ আছে। ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের কাছে ২৯ লাখ ৮১ হাজার ১৩২ টাকা এবং অন্যান্য খাতে তার আরও দুই লাখ ৪৬ হাজার ৩১৩ টাকা ঋণ আছে। অন্যদিকে রেজাউল করিম তার হলফনামায় দাবি করেন, একক বা যৌথভাবে কোনও ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে তার কোনও ঋণ নেই।

রেজাউল করিম চৌধুরী হলফনামায় মোট ৭১ লাখ ৬৫ হাজার ৪৩৮ টাকার অস্থাবর সম্পদ দেখিয়েছেন, আর ডা. শাহাদাত হোসেন দেখিয়েছেন চার কোটি ২৩ লাখ ৯ হাজার ২২৭ টাকার সম্পদ। হলফনামায় শাহাদাত উল্লেখ করেছেন নানাখাতে তার মোট বার্ষিক আয় ২০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। এর মধ্যে বাড়ি ভাড়া থেকে আসে তিন লাখ ৫৩ হাজার ২৫ টাকা। চিকিৎসা, শিক্ষকতা ও পরামর্শক হিসেবে পান ১৭ লাখ ২১ হাজার টাকা। অন্যদিকে রেজাউল করিম উল্লেখ করেছেন, নিজের ও নির্ভরশীলদের মিলে তার বার্ষিক আয় ৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। বাড়ি, দোকানভাড়া ও অ্যাপার্টমেন্ট থেকে রেজাউলের বার্ষিক আয় চার লাখ ১৪ হাজার টাকা। ব্যবসা থেকে নির্ভরশীলদের আয় তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা আর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শেয়ার থেকে আয় দুই লাখ এক হাজার টাকা।

হলফনামা অনুসারে, রেজাউল করিম চৌধুরীর মোট অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজ নামে আছে নগদ এক লাখ টাকা, স্ত্রীর নামে তিন লাখ ৫১ হাজার ৪০৯ টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ সাত লাখ আট হাজার ৫৩৯ টাকা ও স্ত্রীর নামে ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৯০ টাকা। পোস্টাল, সেভিংসে নিজ নামে না থাকলেও স্ত্রীর নামে ২০ হাজার টাকার প্রাইজবন্ড আছে। রেজাউল করিমের নিজ নামে রয়েছে চার লাখ টাকা দামের একটি মোটর গাড়ি। স্বর্ণ ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতুর মধ্যে বিবাহসূত্রে নিজ নামে ৫০ হাজার টাকা মূল্যমানের ২০ তোলা স্বর্ণ ও স্ত্রীর নামে ৬০ হাজার টাকা মূল্যমানের ৪০ তোলা স্বর্ণ আছে।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে রেজাউল করিম চৌধুরীর নিজের নামে কৃষি ও অকৃষি জমি নেই। তাবে তার স্ত্রীর নামে দুই গন্ডা দুই কড়া অকৃষি জমি আছে। দালান, আবাসিক ও বাণিজ্যিক সম্পদের মধ্যে নিজ নামে উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত ভূমির ওপর আবাসিক গৃহমূল্য এক লাখ টাকা ও যৌথ মালিকানার ক্ষেত্রে প্রাপ্ত চার ভাগের এক অংশ। নিজ নামে চারটি অ্যাপার্টমেন্ট যার মূল্য এক কোটি ৯ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৭ টাকা।

অন্যদিকে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী ডা. শাহাদাত অস্থাবর সম্পদ দেখিয়েছেন চার কোটি ২৩ লাখ ৯ হাজার ২২৭ টাকা। এর মধ্যে নিজের নগদ টাকা আছে ১৫ লাখ টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে নিজের নামে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ ৩৪ লাখ ৪৭ হাজার ২৭৭ টাকা, নিজের নামে বন্ড, ঋণপত্র, স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত ও তালিকাভুক্ত নয় এমন কোম্পানির শেয়ার বাবদ তিন লাখ ৭১ হাজার ৩৫০ টাকা। এছাড়া নগরীর পাঁচলাইশ এলাকায় শাহাদাতের দি ট্রিটমেন্ট সেন্টার নামে একটি হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক সেন্টার আছে। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবসায়িক মূলধন তিন কোটি ২৮ লাখ ৯০ হাজার ৬০০ টাকা।

তার নিজের নামে ১১ লাখ ৮০ হাজার মূল্যমানের কার (ফিল্ডার-টয়োটা) ও ২৭ লাখ ২০ হাজার মূল্যমানের ভি-৭৩ মডেলের পুরনো জিপ গাড়ি আছে।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে ডা. শাহদাতের নিজ নামে ১ কোটি ৮৬ লাখ ৫৬ হাজার টাকার স্থাবর সম্পদ আছে। এর মধ্যে নিজ নামে ১৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা মূল্যের ১৮ শতক এবং ছয় লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের ১ দশমিক ৫ কাঠা অকৃষি জমি আছে। নিজ নামে ৬৭ লাখ ৮৬ হাজার টাকার আটতলা বিশিষ্ট একটি দালানের এক অংশ আছে। এ ছাড়া ৩৫ লাখ টাকা দামের একটি অ্যাপার্টমেন্ট আছে শাহাদাতের।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন,চসিক,রেজাউল করিম চৌধুরী,ডা. শাহাদাত
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close