• বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

শহীদ মিনারে শিক্ষার্থীরা খালি পায়ে, শিক্ষকরা জুতাসহ!

প্রকাশ:  ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২০:৩৯
বগুড়া প্রতিনিধি
বগুড়ার ধুনট উপজেলায় একটি স্কুলের দুই শিক্ষক শহীদ মিনারের বেদীতে জুতা পায়ে উঠে বিতর্কের সৃষ্টি করেছেন।

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় একটি স্কুলের দুই শিক্ষক শহীদ মিনারের বেদীতে জুতা পায়ে উঠে বিতর্কের সৃষ্টি করেছেন। ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হলে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। তবে একই ছবিতে মিনারের বেদীতে সম্মান প্রদর্শন করে দুই শিক্ষার্থীকে খালি পায়ে দেখা গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গোসাইবাড়ি কেও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। অভিযুক্ত দু'জন হলেন- স্কুলের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক ও সহকারি শিক্ষক রফিকুল ইসলাম।

এ বিষয়ে কয়েকজন শিক্ষক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের সকালে গোসাইবাড়ি কেও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্যোগ নেয়।

এসময় এনামুল হক ও রফিকুল ইসলাম জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদীতে উঠে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তবে স্কুলের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও গোসাইবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানসহ অন্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা খালি পায়ে ছিল।

এদিকে প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকের এমন ছবি রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া এবং ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে কামরুল হাসান নামের একজন ফেসবুকে মন্তব্য করেন, একজন প্রধান শিক্ষক হিসেবে শহীদ মিনারে জুতা পায়ে? তার এ ধরনের কাজের ধিক্কার জানাই এবং তার চরম শাস্তি চাই।

অন্য একজন মন্তব্য করেছেন, শিক্ষকেরা যদি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে না পারেন, তাহলে তাদের কাছ থেকে কোমলমতি ছেলেমেয়েরা কী শিক্ষা পাবে?

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক এনামুল হক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় পায়ে স্যান্ডেল থাকার কথা মনে ছিল না। এর জন্য আমি খুব লজ্জিত। ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আর ঘটবে না।

স্কুল কমিটির কমিটির সভাপতি ও গোসাইবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান বলেন, দুই শিক্ষক মনের অজান্তে এ কাজটি করেছেন। ওই সময় তিনি বিষয়টি লক্ষ্য করেননি। পরে ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন।

ধুনট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলম বলেন, শহীদ মিনারে জুতা পায়ে ওঠার ঘটনাটি দুঃখজনক। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করে ওই শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজিয়া সুলতানা বলেন, তদন্ত করে ওই শিক্ষকদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

শিক্ষক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close