• সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭
  • ||

৭ বছর পর কাল বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন

প্রকাশ:  ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৫৫
জি এম শান্ত, বরিশাল
সম্মেলনকে ঘিরে সমগ্র বরিশাল মহানগরীতে ব্যাপক সাজসজ্জা। ছবি: পূর্বপশ্চিম

দীর্ঘ সাত বছর পরে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। আগামীকাল রোববার (৮ ডিসেম্বর) সকালে নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির হোসেন আমু এমপি।

প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী মর্যাদা) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। সভাপতিত্ব করবেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল এবং সঞ্চালনায় থাকবেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ।

সম্মেলনকে ঘিরে সমগ্র বরিশাল মহানগরীতে ব্যাপক সাজসজ্জা চলছে। বিমানবন্দর থেকে সম্মেলনস্থল পর্যন্ত শতাধিক তোরণ নির্মাণ ছাড়াও নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে আলোকসজ্জা, সড়কের পাশে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের ছবিসহ ব্যানার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড এবং সড়কের আইল্যান্ডে নানা রঙের পতাকা স্থাপন করা হয়েছে। নগরীও সাজানো হয়েছে নবরূপে।

সর্বশেষ ২০১২ সালে বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সে সম্মেলনে তৎকালীন সিটি মেয়র শওকত হোসেন হিরন মহানগর সভাপতি মনোনীত হয়েছিলেন। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনোনীত হন আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ। ২০১৫ সালে হিরনের অকাল মৃত্যুর প্রায় দু’বছর পরে সম্মেলন ছাড়াই মহানগর কমিটির পুনর্গঠন হয়। সে কমিটিতে হিরনের অনুসারী কারো তেমন পদ পদবি জোটেনি। সভাপতি পদে ফিরে আসেন অ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল। সম্পাদক হন অ্যাডভোকেট কেএম জাহাঙ্গীর। আবুল হাসনাত আবদুল্লাহর জ্যেষ্ঠ পুত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্ব লাভ করেন। গত বছর সিটি নির্বাচনে সাদিক আবদুল্লাহ দলীয় মনোনয়ন পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন। এরপর থেকে তিনি বরিশাল মহানগরীতে ক্ষমতাসীন জোটের প্রধান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়েছেন। সে নিরিখে সাদিক আবদুল্লাহ আসন্ন এ সম্মেলনে প্রধান আলোচিত ব্যক্তি।

দলের কেন্দ্রীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে ৭ বছর পরে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগে অনেক হিসেব চলছে। তবে ইতোপূর্বে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের ঘোষণা দেয়া হলেও অজ্ঞাত কারণে সে বিষয়ে এখন আর কিছু শোনা যাচ্ছে না। সেক্ষেত্রে দলের আসন্ন কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগে আর নতুন কিছু হবার সম্ভবনা নেই।

তবে আগামীকালের সম্মেলনকে ঘিরে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে সবচেয়ে বড় উচ্ছাস সৃষ্টি হয়েছে সভাপতি এবং সম্পাদক পদ নিয়ে। এ বিষয়ে দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতামতের প্রাধান্য থাকার বিষয়টি মাথায় রেখেও সম্পাদক পদে বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক সাদিক আবদুল্লাহর প্রতি আগ্রহ রয়েছে তার অনুসারীদের।

তবে জটিলতা রয়েছে সভাপতি পদ নিয়ে। মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে গত কয়েকদিন ধরে দু’জনের নাম সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে। এর মধ্যে বরিশাল সদর আসনের সাবেক এমপি ও প্রয়াত শওকত হোসেন হিরনের স্ত্রী জেবুন্নেসা আফরোজের সাথে বর্তমান এমপি ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামিমের নামও শোনা যাচ্ছে। বর্তমান সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলালের আগ্রহ-অনাগ্রহ কোনটাই নেই বলে তার ঘনিষ্ঠজনরা জানান।

প্রসঙ্গত, মহানগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০১২ সালের ২৭ ডিসেম্বর। ওই সম্মেলনের ৪ বছর পর ২০১৬ সালের ২০ অক্টোবর মহানগরের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়। এ কমিটির মেয়াদ শেষ হয় গত ১৯ অক্টোবর। এবার সম্মেলনের আগে নগরীর ৩০ ওয়ার্ডে সম্মেলন সম্মেলন সম্পন্ন করা হয়েছে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএমএস/কেএম

মহানগর আওয়ামী লীগ,সম্মেলন,বরিশাল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close