Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

নেত্রকোনায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫ 

প্রকাশ:  ০৪ অক্টোবর ২০১৯, ১৪:২৮ | আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০১৯, ১৪:৩০
নেত্রকোনা প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়ায় দোকানের সামনে অটোরিকশা রাখাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ জনের মত আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

এর মধ্যে মারাত্মক আহত ৩ জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তারা হলেন, উপজেলার বলাইশিমুল উইনিয়নের ভরাপাড়া গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে রিফাত মিয়া (২০), সুজন মিয়ার ছেলে আনোয়ার (২৫) এবং চানফর তালুকদারের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৫৫)। বাকিরা উপজেলা হাসপাতাল ও স্থানীয় ফার্ম্মেসিতে চিকিৎসা নেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানান, বুধবার (২ অক্টোবর) রাতে কেন্দুয়া-নেত্রকোণা সড়কের ভরাপাড়া বাজারে ভরাপাড়া গ্রামে ধান ব্যবসায়ী টিটন মিয়ার দোকানের সামনে একই গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে অটোচালক বাবুল মিয়া তার অটোরিকশাটি রাখে। টিটন মিয়া তার দোকানের সামনে অটোটি না রাখতে বললে এক পর্যায়ে দু'জনের মধ্যে বিগবিতণ্ডা শুরু হয়।

স্থানীয়রা বিষয়টি থামিয়ে দেন। পরদিন বৃহষ্পতিবার (৩ অক্টোবর) সকালে টিটনের চাচাত ভাই এরশাদ ভরাপাড়া বাজারে এলে বাবুলের ভাই বাদল আবার ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। এসময় উভয় পক্ষে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে স্থানীয়রা আবারও ঝগড়া থামিয়ে দেন।

পরে বিকেলে এরশাদের ছোট ভাই রিফাত (২০) ঢাকা থেকে ভোটার হওয়ার জন্য বাড়ী আসার পথে বাবুল বাদল গংদের আত্মীয় আবুল কালামের বাড়ির সামনে এলে বাদল গংরা রিফাতকে ধারলো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। খবর পেয়ে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে ঝাঁপিয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের রিফাত, আনোয়ার, আব্দুর রাজ্জাক, ফাতেমা আকতার, এখলাস মিয়া, স্বপন মিয়াসহ ১৪/১৫জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

কেন্দুয়া থানার ওসি রাশেদুজ্জামান জানান, দোকানের সামনে অটো রাখার তুচ্ছ ঘটনায় এ সংঘর্ষ হয়। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/আরএইচ

নেত্রকোনা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত