Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||

আগরতলা স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ

প্রকাশ:  ১৭ আগস্ট ২০১৯, ১৮:০৬
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

ভারত-বাংলাদেশ দু’দেশের আখাউড়া সীমান্তের ওপারে ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলা আর্ন্তজাতিক স্থলবন্দরে এবার থেকে চালু হতে চলেছে নতুন প্রযুক্তি সম্পন্ন ইলেক্ট্রনিক ডেটা ইন্টারচেঞ্জ (ইডিআই) সিস্টেম। এ নতুন নিয়মের ‘গ্যাঁড়াকলে’ বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা।

ঈদ উল আযহা উপলক্ষে টানা ৬দিন বন্ধের পর শনিবার (১৭ আগস্ট) থেকে বাণিজ্য শুরু হওয়ার কথা থাকলেও অনির্দিষ্টকালের জন্য আখাউড়া-আগরতলা স্থলবন্দর সীমান্ত পথে ফের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে।

ত্রিপুরায় নিযুক্ত বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের হাইকমিশনার কীরিটি চাকমার হস্তক্ষেপ কামনা করে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা জানান, পচনশীল পণ্যবোঝাই অর্ধশতাধিক ট্রাক আখাউড়া বন্দরে ভারতে রফতানির অপেক্ষায় পড়ে আছে। নতুন নিয়ম চালু হওয়ার আগ পর্যন্ত পূর্বের নিয়মে অন্তত আখাউড়া বন্দরে আটকে পড়া পণ্যবোঝাই ট্রাকগুলো তারা যেন গ্রহণ করেন ভারতীয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। নতুবা রফতানি বাণিজ্য বাধাগ্রস্ত হওয়াসহ বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। মুখ ফিরিয়ে নেবেন এ পথের আদমানি-রফতানি বাণিজ্য থেকে।

ভারতীয় কাস্টমস ও একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায, ভারতের ত্রিপুরার আগরতলা কাস্টমস হাউসে অনলাইন পদ্ধতি ইলেক্ট্রনিক ডেটা ইন্টারচেঞ্জ (ইডিআই) জটিলতায় অনির্দিষ্টকালের জন্য এ পথে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে।

বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, পূর্ব কোনও ঘোষণা ছাড়া হঠাৎ করে ভারতীয় কাস্টমস সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আগরতলা বন্দরে ইডিআই (ইলেকট্রনিক ডেটা ইন্টারচেঞ্জ) ব্যবস্থা চালু করায় ‘মুখ থুবড়ে’ পড়েছে আখাউড়া-আগরতলা স্থলবন্দর সীমান্তের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য।

পূর্বোত্তর ভারতসহ ত্রিপুরায় রফতানির অপেক্ষায় অর্ধশতাধিক পণ্যবোঝাই ট্রাক আখাউড়া বন্দরে আটকা পড়ে আছে। এ নতুন নিয়মের জটিলতায় বন্ধ রয়েছে মাছ রফতানি বাণিজ্য। হঠাৎ সিদ্ধান্তে দু’দেশের বাণিজ্য বন্ধ থাকায় অস্বস্তি বিরাজ করছে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের মাঝে।

অবশ্য ভারতীয় কাস্টমস সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বলছে, আখাউড়া-আগরতলা স্থলবন্দর সীমান্তপথে ত্রিপুরা হয়ে পূর্বোত্তর ভারতে বাণিজ্য করতে হলে ব্যবসায়ীদেরকে অবশ্যই আগরতলা কাস্টমস হাউসে অনলাইন পদ্ধতি ইলেক্ট্রনিক ডেটা ইন্টারচেঞ্জ (ইডিআই) নিয়মের মধ্যদিয়ে বাণিজ্য করতে হবে।

ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের নিয়োগকৃত ডাটা অপারেটর কাস্টমস হাউজ এজেন্সি কে (সিএইচএ) বিষয়টি দেখবালের দায়িত্ব নেস্ত করা হয়েছে। কিন্তু ৫ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত আগরতলা বন্দরে নিয়োগপ্রাপ্ত এজেন্সি কর্তৃপক্ষ তাদের দায়িত্ব পালন করছে না বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ তুলেন আগরতলা কাস্টমস এক কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, এজেন্সির নিয়োগকৃত অপারেটররা তাদের কাজ সঠিকভাবে বুঝে করতে পারছেন না। ফলশ্রুতিতে আখাউড়া-আগরতলা ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্টের (আইসিপি) কাস্টমস কর্তৃপক্ষের হঠাৎ করে নেয়া এমন সিদ্ধান্তর ‘গ্যাঁড়াকলে’ বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের মধ্যে এখন তীব্র হতাশা বিরাজ করছে।

আখাউড়া স্থলবন্দর সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোবারক হোসেন ভুঁইয়া ও ভুক্তভোগী একাধিক ব্যবসায়ী জানান, ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের ইলেক্ট্রনিক ডেটা ইন্টারচেঞ্জ (ইডিআই) জটিলতায় বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা এখন পড়েছেন মারাত্মক বিপাকে। পচনশীল পণ্যসহ অর্ধশতাধিক মালামাল বোঝাই ট্রাক আখাউড়া বন্দরে ভারতে রফতানির অপেক্ষায় পড়ে আছে। এতে রফতানি বাণিজ্য বাধাগ্রস্তসহ ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

আগরতলা কাস্টমস সুপার মানবেন্দ্র বণিক বলেন, এই পদ্ধতিতে বাণিজ্যের পুরো প্রক্রিয়াটিই এবার অনলাইনে ইলেকট্রনিক ডাটা ইন্টারচেঞ্জ পদ্ধতিতে হতে চলেছে। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় শুল্ক দপ্তরের নির্দেশিকা পাঠানোর পরই আগরতলা শুল্ক দপ্তর বিষয়টি সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট সকলকে অবগত করা হয়েছে। তবে দ্রুত এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

আখাউড়া কাস্টমস সুপার শান্তি বরণ চাকমা বলেন, ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের নতুন নিয়মের জটিলতায় আখাউড়া স্থলবন্দরে পচনশীল পণ্যবোঝাই ট্রাক আটকা পড়ে আছে। সমস্যা দ্রুত সমাধান হওয়া প্রয়োজন। পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

আগরতলা,স্থলবন্দর,আমদানি-রফতানি,বাণিজ্য,বন্ধ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত