• বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

পুত্রহত্যাকে ‘ছেলেধরা’ গুজব বলে চালাতে গিয়ে বাবা আটক

প্রকাশ:  ২৯ জুলাই ২০১৯, ১৮:২৪
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

১০ বছরের শিশু মো. মোরসালিনকে হত্যার পর ‘ছেলেধরা’ গুজব হিসেবে চালিয়ে দিতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা খেল বাবা।

রোববার (২৮ জুলাই) রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ধরমণ্ডল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সন্তানকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন বাবা মোসাঈদ। পুলিশের ভাষ্য, মোসাঈদ মাদকাসক্ত। তাঁর ছেলে মোরসালিন ধরমণ্ডল পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।

স্থানীয় লোকজন, নিহত শিশুর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ১২ বছর আগে ধরমণ্ডল গ্রামের হাসিনা বেগমের সঙ্গে একই এলাকার মোসাঈদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাঁদের মোরসালিন ও জান্নাত আক্তার (৯) নামের দুটি শিশু সন্তানের জন্ম হয়। কয়েক দিন ধরে স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর বনিবনা হচ্ছিল না।

রোববার সন্ধ্যায় ঘর থেকে বের হন মোরসালিন। এর আধা ঘণ্টা পর রাত ৮টার দিকে মোসাঈদও ঘর থেকে বের হন। রাত ৯টার দিকে বাড়িতে এসে মোসাঈদ বলতে থাকেন, তাঁর ছেলে মোরসালিনকে ছেলেধরারা নিয়ে গেছে। সন্দেহ হলে এলাকাবাসী মোসাঈদকে আটক করে।

পরে তাঁর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বাড়ি থেকে আড়াইশ গজ দূরে একটি ডোবায় কচুরিপানাতে মোরসালিনের লাশ লুকিয়ে রাখা দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। এ ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে। রাত ১১টার দিকে মোসাঈদকে আটক করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

এ বিষয়ে নাসিরনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কবির আহমেদ বলেন, মোরসালিন ঘর থেকে বের হওয়ার পর ওত পেতে বসে থাকা বাবা মোসাঈদ মুখ চেপে ধরে শ্বাসরোধে এবং গলায় ব্লেড বা অন্য কোনো ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে মোরসালিনকে হত্যা করে। পরে ছেলের লাশ ডোবায় ফেলে কচুরিপানা দিয়ে ঢেকে দেয়, বলেছে মোসাঈদ।

এ ঘটনায় নিহত শিশুর মা রেহেনা বেগম বাদী হয়ে থানা হত্যা মামলা করেন। শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সদর মর্গে পাঠানো হয়েছে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/কেএম

বাবা আটক,শিশু হত্যা,ছেলেধরা গুজব
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close