• শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

মহেশখালীতে পালাক্রমে কিশোরীকে ধর্ষণ করলো ১৪ যুবক

প্রকাশ:  ১৩ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৯, ০০:৪১
কক্সবাজার প্রতিনিধি

আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার সময় চালিয়াতলী পাহাড়ে নিয়ে ১৬ বছরের এক কিশোরীকে ১৪ জন যুবক পালাক্রমে রাতভর ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কক্সবাজারের মহেশখালীর কালারমারছড়া ইউনিয়নের চালিয়াতলী এলাকায় ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষকরা পেশায় সিএনজি ট্যাক্সি চালক বলে জানা গেছে।

শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই কিশোরীকে পুলিশ হেফাজতে মহেশখালী থানায় নিয়ে যান।

কিশোরী জানান, রোববার সন্ধ্যা ৬টার সময় চকরিয়া থেকে তার আত্মীয়ের বাড়ি যাচ্ছিলেন। বদরখালী স্টেশনে নেমে গন্তব্যে যাওয়ার জন্য গাড়ি খুঁজতে থাকেন। এ সময় এক সিএনজি চালক তাকে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সিএনজিতে তোলে। মহেশখালীর ব্রিজ পার হওয়ার পর চালক আরো ৭-৮ জন সিএনজি চালককে ফোন করে চালিয়াতলী স্টেশনে থাকতে বলে।

তিনি আরো জানান, সন্ধ্যার সময় সিএনজিটি চালিয়াতলী স্টেশনে পৌঁছালে আরো তিন যুবক যাত্রীবেশে তাতে ওঠে। কিন্তু সিএনজিটি তার গন্তব্যে না গিয়ে শাপলাপুরের দিকে চলে যায়। এ সময় তিনি চিৎকার করলে যাত্রীবেশে ওঠা তিন যুবক তার মুখ চেপে ধরে।

তিনি বলেন, গাড়িটি চালিয়াতলী স্টেশন থেকে কিছু দূর দক্ষিণে গিয়ে পাহাড়ের ঢালে দাঁড় করানো হয়। এ সময় চালিয়াতলী থেকে আরো তিনটি সিএনজি গিয়ে দাঁড়ায় সেখানে। সেখান থেকে ১৪/১৫ জন যুবক মিলে তাকে পাহাড়ে নিয়ে যায়। তারা সবাই তাকে সেখানে ধর্ষণ করে।

এ সময় কিশোরী শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয় বলে জানান তিনি। যুবকরা রাতভর ধর্ষণের পর তাকে অচেতন অবস্থায় পাহাড়ে ফেলে। সোমবার ভোর ৪টার সময় মেয়েটির জ্ঞান ফিরলে সেখান থেকে চালিয়াতলীস্থ মাতারবাড়ী রাস্তার মাথা আসেন।

ধর্ষণের শিকার কিশোরী আরো জানান, মাতারবাড়ী রাস্তার মাথায় এসে কিশোরী একটি সিএনজিতে এক মহিলা ইউপি মেম্বারের বাড়ি যান।

এ বিষয়ে ইউপি মেম্বার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েটি আমাকে দত্তক মা ডেকেছেন, সে সূত্রে তিনি আমার মেয়ে। মেয়েটি তার বাড়ি থেকে আমার বাড়ি আসছিল। আসার সময় পথিমধ্যে মহেশখালী চালিয়াতলী স্টেশন থেকে রোববার সন্ধ্যায় ১৪/১৫ জন বখাটে সিএনজি ট্যাক্সি চালক তাকে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে একটি প্রভাবশালী মহল জোর তদবির চালাচ্ছে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জামিরুল ইসলাম বলেন, কিশোরীকে ধর্ষণের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। ধর্ষক যেই হোক, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ইতিমধ্যে ধর্ষকদের গ্রেপ্তারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।


পূবপশ্চিমবিডি/কেএম

মহেশখালী,১৪ যুবক,কিশোরী ধর্ষণ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত