Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||
শিরোনাম

পাঁচ গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা শ্মশানখালী সাঁকো

প্রকাশ:  ০৮ জুলাই ২০১৯, ১৭:০১
ফেনী প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার পাঁচ গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা শ্মশানখালী সাঁকো। ঝুঁকিপূর্ণ এ সাঁকো থেকে পড়ে স্রোতের টানে ভেসে গিয়ে নিহত ও সাঁকো থেকে পড়ে হাত ভেঙ্গে যাওয়ার ঘটনা ঘটছে। এছাড়া প্রতিদিন কেউ না কেউ দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার মাতুভূঞা ইউনিয়নের মহেশপুর, দক্ষিণ লালপুর, পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নের হাসান গনিপুর, জায়লষ্কর ইউনিয়নের খুশিপুর ও উত্তর নেয়াজপুর গ্রামের মোহনায় শ্মশানখালী সাঁকো অবস্থিত। স্বাধীনতার পর থেকে স্থানীয়দের অর্থে এ সাঁকো নির্মিত হলেও সংষ্কারে কেউ এগিয়ে আসেনি।

প্রতিদিন হাজার হাজার পথচারী, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রীরা এ সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করছে। ঝুঁকিপূর্ণ এ সাঁকো থেকে পড়ে স্রোতের টানে ভেসে গিয়ে নিহত হয়েছে মো. হাসান নামের এক শিশু। গত বুধবার খুশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ও স্থানীয় মহেশপুর গ্রামের অটোরিক্সা চালক মো. সবুজের ছেলে ইয়াছিন সাঁকো থেকে পড়ে হাত ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানে ছাত্রটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এছাড়া প্রতিদিন কেউ না কেউ দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। গুরুত্বপূর্ণ এ সাঁকোর স্থলে ব্রীজ নির্মানের দাবী জানিয়ে আসছে এলাকাবাসী। অধ্যবদী বিষয়টি নজরে পড়েনি কারোর। প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকোতে পারাপারে নানা সমস্যয় পড়ছে স্থানীয়রা ও পথচারী লোকজন। সাঁকোর উত্তর পাশে কবরস্থান না থাকায় দক্ষিণ পাশের কেউ মৃত্যুবরণ করলে কলাগাছের ভেলায় সে মরদেহ নিয়ে যেতে হয়। দাফন করার জন্য উপযুক্ত কোন কবর স্থান নেই। রয়েছে সাঁকোর পাশে ছোট একটি টিনশেট মসজিদ।

এলাকার স্থানীয় নিজাম উদ্দিন, অজি উল্যাহ, সেলিম, বাবুল ও মিয়াধন জানান, বর্ষা ও শুষ্ক মৌসুমে এ সাঁকো দিয়ে চলাচল করতে নানা ধরনের দুর্ভোগ পোহাতে হয় হাজার হাজার মানুষকে। তারপরও ঝুঁকি নিয়ে উপজেলা সদরে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছে স্থানীয়রা। এখানে ব্রীজ নির্মিত হলে এ অ লের ২ লাখ লোকের যাতায়াতের পথ সুগম হবে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আলমগীর জানান, একশত মিটার শ্মশানখালী সাঁকো প্রতিবছর স্থানীয়দের সেচ্ছাশ্রমে ও অর্থায়নে বাঁশ দিয়ে মেরামত করা হয়। নির্বাচন আসলে জনপ্রতিনিধিরা সাঁকোর স্থলে ব্রীজ নির্মাণের আশ্বাস দিলেও কোন কাজে আসেনি। সাঁকোর স্থানে ব্রীজ নির্মাণের জন্য সরকারের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম ভূঞা বাঁশের সাঁকোটি পরিদর্শন করেছেন। এসময় স্থানীয় শত শত লোক একত্রিত হয়ে সাঁকোর স্থলে ব্রীজ নির্মাণেল দাবী জানান।

দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম ভূঞা জানান, শ্মশানখালী সাঁকোর স্থানে ব্রীজ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে কথা বলবেন। তিনি আরো বলেন, সাঁকোর স্থানে ব্রীজ নির্মাণ খুব প্রয়োজন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/আরএইচ

ফেনী
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত