Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬
  • ||

ন্যায্যমূল্যে ধান ক্রয়ে লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন

প্রকাশ:  ২৯ মে ২০১৯, ২০:৩৬
নওগাঁ প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

নওগাঁর রাণীনগরে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যশস্য (ধান ও গম) সংগ্রহ করার লক্ষ্যে লটারীর মাধ্যমে নির্বাচন করা হচ্ছে কৃষকদের।

চলতি মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। প্রতিবছরই এক শ্রেণির সিন্ডিকেট দল কৃষকদের নাম ব্যবহার করে তাদের লভাংশ অবৈধভাবে ভোগ করে আসছিলো যার কারণে কৃষকরা ধান উৎপাদন করে সব সময় লোকসান দিয়ে আসছে।

কৃষকদের লোকসান পূরণ করার লক্ষ্যে কৃষকদের কাছ থেকে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয় করার জন্য জেলা প্রশাসনের নির্দেশক্রমে লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন করা হচ্ছে।

নির্বাচিত কৃষকদের বাড়ি গিয়ে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয় করা হবে। এই কর্মসূচীর অংশ হিসেবে লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে রাণীনগর উপজেলা প্রশাসন।

এ উপলক্ষ্যে বুধবার (২৯ মে) বিকেলে উপজেলা খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুনের সভাপতিত্বে ২নং কাশিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে ভাগ্যবান কৃষকদের নির্বাচন করা হয় যাদের কাছ থেকে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয় করা হবে।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহীদুল ইসলাম, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম সাইদী সবুজ খাঁন, ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান বাবু, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবীব রতন, কৃষি ও খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী, পরিষদের সকল সদস্য, স্থানীয় কৃষক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

চলতি মৌসুমে উপজেলায় বোরো সংগ্রহ ২০১৮-২০১৯ মৌসুমে অভ্যন্তরীণভাবে ২৬ টাকা কেজি দরে ৫শত ৩২ মেট্টিক টন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। লক্ষ্যমাত্রার সবটুকু ধান লটারীর মাধ্যমে নির্বাচিত কৃষকদের কাছ থেকে ক্রয় করা হবে। উক্ত ইউনিয়নে তালিকাভুক্ত চাষীদের মধ্যে লটারির মাধ্যমে ১১ জন কৃষকে নির্বাচন করা হয়।

নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, পর্যায়ক্রমিকভাবে উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন থেকে ৫শত ৩২জন কৃষককে লটারীর মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। নির্বাচিত প্রতিজন কৃষকের কাছ থেকে ১মেট্টিক টন করে ধান ক্রয় করা হবে। আমি আশা করি এই কর্মসূচির মাধ্যমে উপজেলার কৃষকরা একটু হলেও ধানের ন্যায্যমূল্য পাবেন। কোন সিন্ডিকেট দল আর কৃষকদের লাভের ভাগ অবৈধভাবে ভোগ করতে পারবে না। এই বিষয়ে সরকার বদ্ধ পরিকর। ধান ও চাল সংগ্রহের ক্ষেত্রে কোন অনিয়মকে মেনে নেওয়া হবে না। চাল সংগ্রহের ক্ষেত্রে একই পদ্ধতি অবলম্বন করা বলে তিনি জানান।

পিপিবিডি/আরএইচ

নওগাঁ
apps

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত