Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬
  • ||

ওসির কারণে রক্ষা পেলো একটি সংসার

প্রকাশ:  ২৯ মে ২০১৯, ১৭:০৭
গফরগাঁও প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

ময়মনসিংহের গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খানের কারণে রক্ষা পেল দুই সন্তানের জননী ও অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ বিপাশার প্রায় ভেঙে যাওয়া সংসার। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অবিশ্বাস, সন্দেহ ও মনোমালিন্যে সংসারটি ভাঙনের মুখে পড়ে।

মঙ্গলবার (২৮ মে) রাতে গফরগাঁও থানার ওসির অফিস কক্ষে স্বামী-স্ত্রীর ভুল বোঝাবুঝির অবসানের মাধ্যমে সংসারটি রক্ষা পায়।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাগুয়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মনির হোসেন ও বিপাশা দম্পতির দুই কন্যা সন্তান রয়েছে। বিপাশা পুনরায় অন্তঃসত্ত্বা। বেশ কিছুদিন যাবৎ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অবিশ্বাস, সন্দেহ ও মনোমালিন্যে তাদের সংসারটি ভাঙনের মুখে পড়ে। গত মঙ্গলবার নিরুপায় হয়ে বিপাশা স্বামীর বিরুদ্ধে গফরগাঁও থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগের ভিত্তিতে মনির হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

মনির হোসেনও ক্ষুব্ধ হয়ে স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তবে বিপাশা স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করলেও মামলায় আগ্রহী ছিলেন না। এ অবস্থায় গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান স্বামী-স্ত্রীকে বুঝিয়ে সংসারটি রক্ষার উদ্যোগ নেন। তিনি স্বজনদের উপস্থিতিতে আলোচনার মাধ্যমে ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে প্রায় ভেঙে যাওয়া সংসারটি রক্ষা করেন। এ সময় মনির হোসেন ও বিপাশা 'ভবিষ্যতে আর তাদের মধ্যে অবিশ্বাস, সন্দেহ ও মনোমালিন্য থাকবে না মর্মে মুচলেকা প্রদান করেন।

গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, সংসারে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন কারণেই মনোমালিন্য-ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে। সে জন্য একজন আরেক জনের বিরুদ্ধে মামলা করলে ক্ষোভ জন্ম নেয় এবং সংসার টিকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে ওঠে। তারা মামলা করতে আগ্রহী না থাকায় আলোচনার মাধ্যমে ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে সংসারটি রক্ষা করা হয়েছে।

পিপিবিডি/আরএইচ

গফরগাঁও
apps

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত