• মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

নাটোরে ঘরে ঢুকে মা ও প্রতিবন্ধী শিশুকে খুন

প্রকাশ:  ১৫ মে ২০১৯, ১৭:১৯ | আপডেট : ১৫ মে ২০১৯, ১৮:৩৩
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের নলডাঙ্গায় দু’বছরের প্রতিবন্ধী শিশু সন্তান আব্দুল্লাহ ও তার মা শারমিন বেগমকে (২৫) খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার উত্তর বাঁশিরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ বুধবার (১৫ মে) সকালে ঘটনাস্থল থেকে লাশ দু’টি উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নলডাঙ্গা থানার ওসি শফিকুর রহমান জানান, বুধবার ভোরে উপজেলার বাশিলা উত্তরপাড়া গ্রাম থেকে লাশ দুটি তারা উদ্ধার করেন। নিহত শারমিন একই উপজেলার হলুদঘর গ্রামের উমর আলীর মেয়ে ও উত্তর বাঁশিলা গ্রামের মাহমুদুল হক মুন্নার স্ত্রী। মুন্না ঢাকায় গার্মেন্টস কারখানায় চাকরি করেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, ঢাকায় গার্মেন্টস কারখানায় কর্মরত মাহমুদুল হাসান মুন্নার স্ত্রী শারমিন বেগম তার প্রতিবন্ধি ছেলে আব্দুল্লাহকে নিয়ে উত্তর বাঁশিরা গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন। মঙ্গলবার রাতে শিশুসন্তান আব্দুল্লাহকে নিয়ে ঘুমাতে যান তিনি। রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা ওই বাড়িতে ঢুকে ৬টি ঘরের ৫টিতে বাইরে থেকে শিকল উঠিয়ে আটকে দেয়। এরপর তারা শারমিন ও তার শিশুসন্তানকে হত্যা করে। দুর্বৃত্তরা শিশু আব্দুল্লাহকে হত্যার পর পাশের ডোবায় ফেলে চলে যায়। বাড়ির অন্যরা সেহেরি খেতে উঠে বাইরে থেকে ঘরের দরজার শিকল দেওয়া দেখে চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা এসে তাদের দরজা খুলে দেয়। এ সময় নিজ ঘরের মধ্যে শারমিনের গলায় ওড়না পেঁচানো লাশ পড়ে থাকতে দেখেন তারা। এ সময় শিশু আব্দুল্লাহকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। এক পর্যায়ে বাড়ির পাশের ডোবায় আব্দুল্লাহর লাশ পান তারা।

ওসি বলেন, শারমিন সন্তানকে নিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে থাকতেন। মঙ্গলবার রাতের খাবার খেয়ে শারমিন তার ছেলেকে নিয়ে তাদের ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা ওই বাড়িতে ঢুকে ৬টি ঘরের ৫টিতে বাইরে থেকে শিকল উঠিয়ে আটকে দেয়। এরপর তারা শারমিন ও তার শিশুসন্তানকে হত্যা করে। দুর্বৃত্তরা শিশু আব্দুল্লাহকে হত্যার পর পাশের ডোবায় ফেলে চলে যায়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।


পিপিবিডি/কেএম

খুন,মা ও প্রতিবন্ধি শিশুকে খুন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সারাদেশ

অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close