Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
  • ||

সাংবাদিককে মামলার আসামি, ফেসবুকে নিন্দার ঝড়

প্রকাশ:  ১৩ মে ২০১৯, ১২:১৪ | আপডেট : ১৩ মে ২০১৯, ১৩:৩৪
নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ কাজে দুর্নীতির নিউজ করায় পূর্বপশ্চিমবিডি’র দেশসেরা জেলা প্রতিনিধি ও সাপ্তাহিক কুলাউড়ার সংলাপ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার এম.এ. কাইয়ূমকে আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার আসামি করা হয়েছে। মামলায় প্রতিহিংসামূলক সাংবাদিকের নাম জড়ানোয় জেলা ও উপজেলা জুড়ে নিন্দার ঝড় বইছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। জেলা ও উপজেলার সুশীল সমাজ, সাংবাদিক সমাজ ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন প্রতিহিংসামূলক মামলার নিন্দা জানিয়ে বলেন, সংবাদ মাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতেই এমন সাজানো মামলা দেওয়া হয়েছে, যা স্বাধীন মত প্রকাশের অন্তরায়।

এদিকে এম এ কাইয়ূমকে প্রতিহিংসামূলক মামলার আসামি করায় পরবর্তী করনীয় নির্ধারণে রোববার (১২ মে) সন্ধ্যায় জরুরি সভাও করেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

অন্যদিকে জেলা ও উপজেলার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন- মামলা দিয়ে নিজের অন্যায় ও অপকর্ম ঢাকা যাবে না। একজন সংবাদকর্মীকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হত্যা মামলায় জড়ানো কোনভাবেই কাম্য নয়। হয়রানি ও প্রতিহিংসার শিকার এমএ কাইয়ূম। পুলিশ প্রশাসনের কাছে তাদের দাবি, কারো দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে মামলায় জড়ানো বিষয়টি নিরপেক্ষ তদন্ত করে এরূপ মামলা থেকে একজন সংবাদকর্মীকে যেন অব্যাহতি দেয়া হয়।

সাংবাদিক এস আলম সুমন ফেসবুকে লেখেন- প্রতিহিংসা যেনো আবার কুলাউড়ায় ফিরে না আসে। একজন সংবাদকর্মীকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হত্যা মামলায় জড়ানো কোনভাবেই কাম্য নয়। হয়রানি ও প্রতিহিংসার শিকার স্নেহাশীষ কাইয়‚ম। পুলিশ প্রশাসনের কাছে দাবি কারো দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে মামলায় জড়ানোর বিষয়টি নিরপেক্ষ তদন্ত করে এরূপ মামালা থেকে একজন সংবাদকর্মীকে অব্যাহতি দেয়া হোক।

প্রবাসী এমএসসি নাজির ও সাংবাদিক এম আর তাহরিম ফেসবুকে লেখেন - কাদিপুর ইউনিয়নে গ্রাম আদালতে চুরির বিচারকে কেন্দ্র করে জনৈক শ্রমিকের আত্মহত্যার পরে তার পিতার করা হত্যা মামলায় সময়ের সাহসী কলম সৈনিক ছোট ভাই সাংবাদিক এমএ কাইয়ুমকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আসামি করায় তীব্র নিন্দাসহ দ্রুত মামলা থেকে তার নাম প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি!

প্রবাসী জিল্লুর রহমান ও নাজমুল ইসলাম ফেসবুকে লেখেন- প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে দুর্নীতির নিউজ করায় হত্যা মামলার আসামি করা হয়েছে আমাদের সাংবাদিক প্রিয় এম. এ. কাইয়ুমকে। এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

কুলাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সায়হাম রুমেল ও কুলাউড়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া আল জেবু মামলার নিন্দা জানিয়ে ফেসবুকে লেখেন - দুর্নীতির বিরুদ্ধে নিউজ করায় যদি একজন সাংবাদিককে আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার আসামি করা হয়, তবে দুর্নীতিমুক্ত সমাজের স্বপ্ন দেখায়ই বৃথা। যারা দুর্নীতিমুক্ত সমাজ, দেশ চান তারা এর প্রতিবাদ করবেন আশা করছি। আমরা যদি এই অন্যায় মেনে নেই তবে দুর্নীতিবাজরা আমাদের উপর ছড়ি ঘুরাবেই

ভাটেরা স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক ও সাপ্তাহিক আমার কুলাউড়ার পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ আলী চৌধুরী তরিক স্ট্যাটাসে লেখেছেন - ‘প্রশ্ন : কুলাউড়ায় এখন কি চলে? উত্তর: লাশ নিয়ে রাজনীতি। কাদিপুর ইউনিয়নে গ্রাম আদালতে ১টি বিচারকে কেন্দ্র করে জনৈক শ্রমিকরে আত্মহত্যার পরে তার পিতার করা প্ররোচনা মামলায় প্রথমে সংশিষ্টি ইউপির স্বনামধন্য চেয়ারম্যান (১ম এজাহার) আসামি হবার পর এবার আসামি হলেন পূর্বপশ্চিম অনলাইন নিউজ পোর্টালের দেশে সেরা জেলা প্রতিনিধি এমএ কাইয়ুম (২য়- পরিবর্তিত এজাহার)।

যমুনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি আহমেদ আফরুজ নিন্দা জানিয়ে বলেন- এটা করে দুর্নীতিবাজরা নিজেদের অপরাধ সরাসরি স্বীকার করে নিয়েছে। কারণ তারা যে দুর্নীতি করেনি এটা প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়ে আরেকটি অন্যায় পথ বেছে নিয়েছে। আর যে প্রক্রিয়ায় তোমাকে ফাঁসাতে চেয়েছে তারা নিজেরাই ফাঁসবে। ওয়েইট...। দেশ টিভির জেলা প্রতিনিধি সালেহ এলাহী কুটি, ডিবিসি টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি পান্না দত্ত, নিউজ২৪ টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি সৈয়দ বয়তুল আলী, বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম ও জাগো নিউজের জেলা প্রতিনিধি রিপন দেব প্রমূখ তীব্র নিন্দা জানান।

পিপিবিডি/পিএস

মৌলভীবাজার,সাংবাদিক
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত