• বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
  • ||

 তামিমের হাফ সেঞ্চুরির পরেও হার

প্রকাশ:  ১৩ জুন ২০২১, ১৮:০৪
স্পোর্টস ডেস্ক

ডার্ক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ৩১ রানে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড। বৃষ্টির কারণে ১৯ ওভারে প্রাইম ব্যাংকের লক্ষ্য দাড়ায় ১৭৪ রান। কিন্তু নির্ধারিত ১৯ ওভার শেষে ৬ ওভারে ১৪৩ রানের মধ্যেই থেমে যায় তাদের ইনিংস। এই জয়ের ফলে প্রাইম ব্যাংকের সঙ্গে যৌথভাবে টেবিলের শীর্ষ স্থানে ফিরে এসেছে আবাহনী।

১৮৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৫ রানের মধ্যেই রনি তালুকদারের উইকেট হারায় প্রাইম ব্যাংক। ৬৮ রানে ফেরেন অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়ও। ফলে ৬৮ রানের মধ্যেই ২ উইকেট হারিয়ে ফেলে প্রাইম ব্যাংক। তবে অপরপ্রান্তে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম ইকবাল।

৪১ বলে ৫৫ রান করে আরাফাত সানির বলে আফিফ হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। এরপর ৪ রানে ফেরেন অমিত মজুমদারও। মোহাম্মদ মিঠুন ২৭ বলে ৩৪ রান করে বোল্ড হয়ে যান তানজিম হাসান সাকিবের বলে।

নাহিদুল ইসলামও ১৬ রানের বেশি করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ৬ বলে ১১ রান করে অপরাজিত থাকেন অলক কাপালি। আর মনির হোসেন ২ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকলেও দলের জয় নিশ্চিত করতে পারেননি। আবাহনীর হয়ে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন সাকিব ও আমিনুল ইসলাম।

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে মুনিম শাহরিয়ারের বিদ্ধংসী ব্যাটিংয়ের সুবাদে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮৩ রানের বিরাট পুঁজি পায় আবাহনী। মোহাম্মদ নাইমকে নিয়ে মুনিম উদ্বধনী জুটিতে ৪৯ রান যোগ করেন। নাইম ফেরেন ২৭ বলে ২৯ রান করে। তাকে বোল্ড করেন শরিফুল ইসলাম।

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতেও মুনিমকে কিছুক্ষণ সঙ্গ দিয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েও এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান থেমেছেন ২১ বলে ৩০ রান করে। অলক কাপালির নামের পাশে যোগ হয়েছে তার উইকেট। অধিনায়ক মুশফিক ১৬ বলে ১৪ রানের বেশি করতে পারননি।

শরিফুলের বলে মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরের পথ ধরেছেন। তবে শুরু থেকেই বিদ্ঙসী বযআট করা মুনিম ৫০ বলে ৯২ রান করে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ৯টি চার ও ৫টি ছয়ের সাহায্যে। ৬ বলে ১৩ করে মুনিমের সঙ্গে অপরাজিত ছিলেন আফিফ হোসেন ধ্রুবও।

পূর্বপশ্চিমবিডি/আর

আবাহনী-প্রাইম ব্যাংক,ডিপিএল,তামিম
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close