• রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৫ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

শচীনের নাম ভাঙিয়ে কোচ নিয়োগের অভিযোগ

প্রকাশ:  ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪৭
খেলা ডেস্ক
শচীন টেন্ডুলকার

ভারতীয় ক্রিকেট তো বটেই, বিশ্ব ক্রিকেটে এক বড় তারকার নাম শচীন টেন্ডুলকার। এক কথায় ক্রিকেট ঈশ্বর। লিটল মাস্টার। মাঠ কিংবা মাঠের বাইরে কখনো কোন অভিযোগে যার নাম ওঠেনি। এবার সেই ক্রিকেট ঈশ্বরের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে।

আর এ অভিযোগ এনেছেন ভারতের ক্রিকেট ইম্প্রুভমেন্ট কমিটির (সিআইসি) চেয়ারম্যান লালচাঁদ রাজপুত।

মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে (এমসিএ) ক্রিকেট উন্নয়ন কমিটি (সিআইসি) চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন ভারতের সাবেক এ ক্রিকেটার। এ দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই কথাটা বলতে হলো তাঁকে। লালচাঁদ অভিযোগটা তুলেছেন এমসিএ-র শীর্ষস্থানীয় কাউন্সিল সদস্যদের প্রতি।

মুম্বাইয়ের নানা পর্যায়ের বয়সভিত্তিক রাজ্য দলগুলোয় কোচ, নির্বাচক, ট্রেনার, ফিজিওথেরাপিস্ট নিয়োগ চলছে। কাউন্সিল সদস্যরা শচীন টেন্ডুলকারের নাম ব্যবহার করে এসব নির্বাচন প্রক্রিয়ায় প্রভাব রাখছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন লালচাঁদ রাজপুত। এ নিয়ে এমসিএ সভাপতি বিজয় পাতিলকে মেইলও করেছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’ জানিয়েছে সংক্ষিপ্ত তালিকায় মোট ২৪ প্রার্থীকে বিবেচনা করা হয় সাক্ষাৎকারের জন্য। টেন্ডুলকারের নাম ব্যবহার করে এর মধ্যে বেশ কয়েকজনের নির্বাচনে প্রভাব রাখা হয়।

এ নিয়ে ক্ষিপ্ত লালচাঁদ এমসিএ সভাপতিকে পাঠানো মেইলে লিখেছেন, ‘আমরা শচীন টেন্ডুলকারকে সম্মান করি। কিন্তু তার নাম অপ্রয়োজনীয় জায়গায় ব্যবহার করা হচ্ছে। এক্স, ওয়াই, জেড কে নির্বাচনের সুপারিশ করেছেন টেন্ডুলকার, এমন কথা বলা হচ্ছে। আমরা ভালো করেই জানি শচীনের কোনো পরামর্শ থাকলে সেটি সে সরাসরি এমসিএ সভাপতিকে বলবে। সে একজন আইকন, আমরা তাকে সম্মান করি এবং কোনো পরামর্শ বা সুপারিশ থাকলে সেটি বলার পুরো অধিকার তার আছে।’

মুম্বাই নারী ও পুরুষ মূল দল এবং বয়সভিত্তিক দলের কোচ খুঁজছে। লালচাঁদ এ মেইল পাঠালেন শীর্ষস্থানীয় কাউন্সিল সদস্য অমিত দানির এক চিঠির প্রেক্ষিতে। এমসিএ-কে পাঠানো চিঠিতে দানি বলেছিলেন, ‘নির্বাচিত ব্যক্তিদের যোগ্যতা এমসিএর সঙ্গে যাচাই করা উচিত সিআইসির। ভুল বোঝাবুঝি অবসানের জন্য সিআইসির পরবর্তী সব বৈঠকে আহবায়কদের থাকা উচিত।’

দানির এ চিঠিকে ভালো চোখে দেখছেন ক্রিকেটের পর কোচিংয়ে নেমে পড়া লালচাঁদ, ‘নামগুলো জানতে চাইলে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। কিন্তু প্রকাশ্যে তা বলব না কারণ আমি যথেষ্ট পরিণত। মুম্বাই ক্রিকেট কেন নিচের দিকে নামছে তা বুঝতে পারছি—শীর্ষস্থানীয় কাউন্সিল সদস্য হিসেবে প্রভাব খাটিয়ে নানা কাজ করার জন্য। আমরা (সিআইসি) তা হতে দেব না।’

মেইলে লালচাঁদ কারও নাম উল্লেখ না করে ‘কিছু নির্দিষ্ট মানুষ’ কথাটা লিখেছেন। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার ২৪ প্রার্থীর সাক্ষাৎকার নেন সিআইসি সদস্য লালচাঁদ, সমীর দীঘে ও রাজু কুলকার্নি। ভারতের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান টেন্ডুলকার মুম্বাই রাজ্য দল থেকেই উঠে এসেছেন। মুম্বাইয়ের সাবেক এ ক্রিকেটারের দখলেই এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বাধিক রান ও সেঞ্চুরির রেকর্ড।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এনএন

ক্রিকেট,শচীন টেন্ডুলকার
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close