• বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

প্রথম দিন শেষে এগিয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশ:  ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২৩:৩৪ | আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২৩:৪৬
স্পোর্টস ডেস্ক

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ থেকে শুরু হওয়া বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের মধ্যকার এক ম্যাচ সিরিজের একমাত্র টেস্টের প্রথম দিন শেষে স্বাগতিকরা কিছুটা এগিয়ে রয়েছে বলে মনে করেন সফরকারী দলের অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন। কারণ হিসেবে আরভিন বলেন, উইকেট শিকার ও রানের লাগাম টেনে ধরার কারণে বাংলাদেশ এগিয়ে। আরভিন জানান, ব্যাটিং করার জন্য উইকেট ভালোই ছিলো। কিন্তু বাংলাদেশ বোলারদের মধ্যে নাইম হাসান লাইন-লেন্থ দারুণভাবে বজায় রেখে বোলিং করেছেন। যে কারণে রান তুলতে বেগ পেতে হয়েছে জিম্বাবুয়েকে। প্রথম দিন ৬৮ রানে ৪ উইকেট নেন নাইম।

সম্পর্কিত খবর

    আরভিন বলেন, ‘সত্যিকারর্থে, উইকেট দেখে অবাক হয়েছি। মানুষ বলে, আপনি জানেন না ঢাকার উইকেট কেমন হতে পারে। কিন্তু সত্যিই উইকেট ভালো ছিলো। বাংলাদেশ আমাদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। কারণ আমরা আজ ২ বা ৩ উইকেট বেশি হারিয়েছি।’

    অধিনায়কোচিত ইনিংস খেলে জিম্বাবুয়েকে প্রথম দিন শেষে ৬ উইকেটে ২২৮ রানে পৌঁছে দেন আরভিন। রান রেট ছিলো ২ দশমিক ৫৩। বর্তমান যুগের ক্রিকেটে এই রান রেট মোটেও ভালো নয়। কিন্তু দিনের শেষভাগে আরভিন আউট না হলে জিম্বাবুয়েই এগিয়ে থাকতো।

    আরভিন বলেন, ‘আমরা আজ ৬ উইকেট হারিয়েছি, কিন্তু আমরা আজ আরও কিছু রান করতে পারলে ভালো হতো। কালকে নিজেদের ইনিংসকে বড় করার চেষ্টা করবো। আমি যেমন বলছিলাম, বাংলাদেশ আমাদের রান করতে দেয়নি এবং কিছু বেশি উইকেট তুলে নিয়েছে। তাই দিন শেষে আমি বলবো, বাংলাদেশ কিছুটা এগিয়ে।’

    দ্বিতীয় দিন উইকেটরক্ষক রেগিস চাকাবা ও ডোনাল্ড তিরিপানোর দিকে তাকিয়ে আছেন আরভিন, ‘শেষদিকে, আমি আউট হয়েছি। যদি কাল চাকাবার সাথে খেলতে নামতে পারতাম তবে ভালো হতো। কিন্তু আমি মনে করি, ব্যাট হাতে ভালো করতে পারে তিরিপানো। প্রথম সেশনটি চাকাবা ও তিরিপানোর উপর নির্ভর করছে।’

    টেস্টের প্রথম দিন ২১৩ বলে টেস্ট ক্যারিয়ারে ১৮তম ম্যাচে তৃতীয় সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন আরভিন। এতেই জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে অধিনায়কত্বের অভিষেক ম্যাচেই সেঞ্চুরি করলেন আরভিন। এর আগে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকেই সেঞ্চুরি করেছিলেন ডেভিড হটন। ১৯৯২ সালে ভারতের বিপক্ষে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকে সেঞ্চুরি করে ১২১ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলেন হটন।

    রেকর্ড বইয়ে নাম তুলে ২২৭ বলে ১৩টি চারে ১০৭ রানে থামেন আরভিন। বাংলাদেশের মাটিতে এই সেঞ্চুরিটি স্পেশাল বলে জানালেন আরভিন। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই দেশের বাইরে যেকোন সেঞ্চুরি অনেক বেশি স্পেশাল। অতীতে আমি বাংলাদেশে অনেক সমস্যায় পড়েছি। আমি মনে করি, ইনিংস শুরু করাটা সবসময়ই কঠিন। ধৈর্য্য ও মনোযোগী হতে হয়। কোনভাবেই ঘাবড়ে যাওয়া যাবে না। কারণ স্কোরবোর্ড কোথাও চলে যাচ্ছে না।’


    পূর্বপশ্চিমবিডি/জেআর

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close