• শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

মেসির আনন্দ রজনী

প্রকাশ:  ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:১৮
স্পোর্টস ডেস্ক

গল্পটা লিওনেল মেসির! গল্পটা এক ফুটবল জাদুকরের।

এ যেন এক মহা মিলনমেলা। বাংলাদেশ সময় ১২.৩০টা থেকে শুরু হয় রেড কার্পেট অনুষ্ঠান। এক এক করে প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের নিচে ভিড় জমাতে থাকেন ফুটবলপ্রেমীরা। আর নিজস্ব গাড়ি চড়ে কেউ বান্ধবী, কেউ স্ত্রী, কেউ আবার বাবা-মাকে নিয়ে আসেন ব্যালন ডি’অর অনুষ্ঠানে।

যাত্রার আগেই স্পেনের বিমানবন্দর থেকে একটি ছবি ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেট দুনিয়ায়। তখন উত্তাপটা আরও বাড়ে। এরপর পরিবারসহ প্যারিসে যাওয়ার কয়েকটা খন্ড খন্ড ভিডিও টুইটারে প্রকাশ করে তার ক্লাব বার্সা। নির্দিষ্ট সময়ের অনেক আগেই নিজস্ব বিমানে করে আশার ফানুস উড়িয়ে প্যারিস যাত্রা করেন মেসি। সতীর্থরাও যান, তবে ভিন্ন বিমানে। আবার কাতালান কয়েকজনের জন্য টিমের বিমানের ব্যবস্থাও করে দেয় বার্সা। সবাই এক এক করে যোগ দেন ওই অনুষ্ঠানে।

একটা সময় যখন ব্যালন ডি’অর ট্রফিটা বিশেষ একটা গাড়ি করে প্যারিসের ওই জমকালো বলরুমের সামনে আসে। দর্শকরা করতালি দিয়ে তাকে বরণ করে নেয়। পাশাপাশি সবার কণ্ঠে ফুটে উঠে প্রিয় তারকার-লিওনেল মেসির নামটা। অবশ্য কেউ কেউ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কথাও বলেছিলেন। কিন্তু তিনি আবার আসেননি। আগেই তেমন একটা ইঙ্গিত দেয় ইতালিয়ান গণমাধ্যম।

যাক, রোমাঞ্চকর একটা রাত কাটল মেসির। দুই ছেলের আনন্দ যেন বাবা মেসির চেয়ে বেশি। যখন মুখবন্ধ খামটা খুলে দিদিয়ের দ্রগবা মেসির নাম বললেন, তখন তার ছেলে থিয়াগোর অভিব্যক্তি সত্যিই নজর কেড়েছে সবার। রীতিমত নাচতে শুরু করে ছোট্র থিয়াগো। পাশে থাকা কয়েকজন অতিথিকে যেন সে জানিয়ে দিতে চেয়েছে, ‘দিস ইস মাই ফাদার।’

শেষমেশ স্বপ্নের ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর নিয়ে স্পেনে ফিরে যান মেসি। যাওয়ার আগে বলে যান নিজের গল্পটা। ধন্যবাদ দিয়ে যান ভক্তদের, সতীর্থদের সেই সাথে যারা তাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছেন তাদের।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জেআর

মেসির আনন্দ রজনী,ব্যালন ডি অর,লিওনেল মেসি,বার্সেলোনা,আর্জেন্টিনা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত