• বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

লিটনের পর মাঠ থেকে হাসপাতালে নাঈম

প্রকাশ:  ২২ নভেম্বর ২০১৯, ২০:০২ | আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০১৯, ২০:০৮
স্পোর্টস ডেস্ক

গোলাপি বলের ঐতিহাসিক দিবারাত্রির টেস্টে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে মাত্র ১০৬ রানে গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশ। সফরকারীদের হয়ে সর্বোচ্চ রান আসে বাংলাদেশ দলের ওপেনার সাদমানের ব্যাট থেকে। তিনি করেন ২৯ রান।

সেই সাথে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির মূল অস্ত্র যে পেসাররা সেটা টের পাওয়া এ টেস্টের প্রথম ইনিংসেই। ইনিংসের পুরোটাই জুড়ে রাজত্ব করেছেন ভারতীয় পেসাররা, যেখানে টিকে থাকার সংগ্রামে বিপর্যস্ত দশা টাইগার ব্যাটসম্যানদের। স্বাগতিকদের হয়ে ইশান্ত শর্মা ৫টি, উমেশ যাদব ৩টি ও মোহাম্মদ শামি ২টি করে উইকেট নেন।

প্রথম দিনেই বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান আঘাত পেয়েছেন মাথায়। তাতে এই ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছেন লিটন দাস এবং নাঈম হাসান। প্রথম দিন তাদের হাসপাতালের বিছানাতেও শুতে হয়েছে।

লিটন ছিটকে গেছেন প্রথম সেশনের ঠিক আগে, ২১তম ওভারে। নাঈম বিরতির পরপরই ২২তম ওভারে। ২ ওভারের মধ্যে বাংলাদেশ হারায় দুজনকে। দুজনেরই সিটি স্ক্যান করা হয়েছে।

ইশান্ত শর্মার বাউন্সারে মাথায় আঘাত পেয়ে লিটনকে যেতে হয় হাসপাতালে। পরে আর ব্যাট হাতে নামতে পারেননি তিনি। লিটনের আঘাতের রেশ না কাটতেই আরেক হাসপাতালে যেতে হয় নাঈম হাসানকেও। মোহাম্মদ শামির বাউন্সার লাগলে তিনি খেলা চালিয়ে যান। আউট হওয়ার পর তাকেও নেওয়া হয় হাসপাতালে। চোট এতটাই গুরুতর এই টেস্ট থেকে দুজনই ছিটকে পড়েছেন।

‘কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট’ নিয়ম লিটনের জায়গায় আসেন মেহেদি হাসান মিরাজ। আর নাঈমের জায়গায় আসেন তাইজুল ইসলাম। যদিও লিটনের স্থলাভিষিক্ত হবেন কে সেটা নিয়েই ছিল শঙ্কা। পারিবারিক কারণে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত দেশে ফিরলে তার জায়গায় কাউকে নেওয়া হয়নি। এদিকে, হাতের আঙ্গুল ফেটে যাওয়ায় ইডেন টেস্ট থেকে ছিটকে পড়েন ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান। আর মূল একাদশে রাখা হয়নি মিরাজ এবং তাইজুলকে।

নতুন নিয়মের ব্যাপারে আইসিসি জানায়, মাথায় আঘাত লাগলে বদলি খেলোয়াড় নেয়ার সিদ্ধান্ত নেবেন দলের ফিজিও। তবে, দুই ক্রিকেটারকে অবশ্যই একই মানের হতে হবে। তাতে ম্যাচ রেফারির অনুমোদন থাকবে। নাঈমের বদলি হিসেবে তাইজুল বল করার অনুমতি পেলেও লিটনের বদলি নামা মিরাজ বল করতে পারবেন না।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় শুরু হয় দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচ। যেখানে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলনেতা মুমিনুল হক। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা টাইগারদের ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ১০৬ রানে।

খেলা শুরুর আগে ইডেনে ঐতিহাসিক ঘণ্টা বাজিয়ে টেস্ট ম্যাচের উদ্বোধন ঘোষণা করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এসময় তাদের পাশেই ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

লিটন দাস,মাঠ,হাসপাতাল,নাঈম হাসান,ক্রিকেট,টেস্ট,সিরিজ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত