• শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

পিএসজির মন গলাতে পারেনি বার্সা

প্রকাশ:  ১৪ আগস্ট ২০১৯, ১৫:১২
স্পোর্টস ডেস্ক

নেইমার থাকছেন না পিএসজিতে সেটা পুরোনো খবর। নেইমার বার্সেলোনায় ফেরার জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন এবং কাছা দিয়ে নেমেছেন তা সবাই জানে। পিএসজি এতদিন চেষ্টা করেছে নেইমারকে দলে রাখতে কিন্তু কোনো চেষ্টাই নেইমারকে রাজি করাতে পারেনি প্যারিসে থাকার জন্য। এমনকি কিলিয়ান এমবাপ্পের আহ্বানও উপেক্ষা করে পিএসজি ছাড়তে দৃঢ় প্রত্যয়ী নেইমার। এত চেষ্টার পর পিএসজিও ক্ষেপেছে ভীষণ ব্রাজিলিয়ান এই তারকার ওপর। মৌসুমের প্রথম ম্যাচে তাই নেইমারকে একাদশেও রাখেনি পিএসজি ম্যানেজার টুখেল।

এরই মধ্যে ঘোষণা ছিলো নেইমারকে বার্সার কাছে বিক্রি করতে চায় না ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। এতে নড়েচড়ে বসে আরেক জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়াল বস ফ্লেরেন্তিনো পেরেজের খুবই পছন্দের খেলোয়াড় নেইমার। রিয়ালের আগ্রহের খবরে বার্সারও ঘুম হারাম হয়ে যায়। আর তাই এবার সরাসরি বসে পিএসজির সাথে নেইমারকে ফেরানোর চুক্তি করতে।

গতকাল মঙ্গলবার, নেইমারের ভবিষ্যতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটা দিন ছিল। এদিনই আনুষ্ঠানিকভাবে নেইমারের দলবদল নিয়ে প্যারিসে আলোচনায় বসেছিল দুই ক্লাবের দুটি প্রতিনিধি দল। তবে দিন শেষে বার্সা সমর্থকেরা হতাশই হয়েছেন। সারা দিন আলোচনা করেও বার্সার কাছে নেইমারকে বিক্রি করার ব্যাপারে আগ্রহ দেখায়নি পিএসজি। বার্সার একটি প্রস্তাবও পছন্দ হয়নি তাদের।

পিএসজি প্রথম থেকেই সাফ জানিয়ে দিয়েছে, নেইমারের বিনিময়ে বার্সেলোনার কাছ থেকে তারা শুধুই অর্থ চায়, আর কিছু না। যে খেলোয়াড়কে মাত্র দুই বছর আগেও ২২ কোটি ২০ লাখ ইউরো দিয়ে দলে এনেছিল, তাকে বিক্রি করার সময়েও মোটামুটি একই পরিমাণ অর্থ চাচ্ছে পিএসজি। পিএসজির এই চাহিদা বার্সেলোনা শুনেও যেন শুনছে না। টাকা কম দিতে চুক্তির মধ্যে এক বা একাধিক খেলোয়াড় যুক্ত করতে চাচ্ছে দলটি। এ প্রস্তাব নিয়েই গতকাল প্যারিসে গিয়েছিলেন বার্সেলোনার দুই পরিচালক—সাবেক ফরাসি ডিফেন্ডার এরিক আবিদাল ও হাভিয়ের বোর্দাস। পিএসজির প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন সদ্য নিযুক্ত টেকনিক্যাল ডিরেক্টর লিওনার্দো।

বার্সেলোনা প্রথমে ১০ কোটি ইউরোর সঙ্গে ফিলিপ কুতিনহো ও ইভান রাকিতিচকে দিতে চেয়েছে। আলোচনার বিভিন্ন সময়ে উঠে এসেছে বার্সার ফরাসি তারকা ওসমানে দেম্বেলে, স্যামুয়েল উমতিতি ও রাইটব্যাক নেলসন সেমেদোর নামও। তবে চুক্তিতে কোনো খেলোয়াড় অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে আগ্রহ দেখায়নি পিএসজি। তাদের পুরো অর্থই লাগবে।

আর এখানে এসেই ফেঁসে গেছে বার্সা। আয়াক্স থেকে ৭৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে ১২০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে আতোয়াঁন গ্রিজমানকে আনতে গিয়ে বলতে গেলে ভাঁড়ার একদম শূন্য বার্সেলোনার। চাইলেও পিএসজিকে পুরো টাকা দেওয়ার সামর্থ্য নেই তাদের। ওদিকে অ্যাটলেটিকো থেকে গ্রিজমানকে আনতে গিয়েও ঝামেলা পাকিয়ে রেখেছে তারা।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ বাই আউট ক্লজ পরিশোধ না করেই গ্রিজমানকে নিয়ে গেছে বার্সেলোনা, অভিযোগ অ্যাটলেটিকোর। তাদের দাবি, মূল বাই আউট ক্লজ থেকে ৭২ মিলিয়ন পাউন্ড কম দিয়েছে বার্সা। এই অভিযোগ নিয়ে আদালত পর্যন্তও গিয়েছে অ্যাটলেটিকো। সেখানে বার্সা যদি দোষী সাব্যস্ত হয়, অ্যাটলেটিকোকে আরও ৭২ মিলিয়ন ইউরো দেওয়া লাগবে বার্সার। এই পরিস্থিতিতে নেইমারকে শুধু টাকা দিয়ে কেনাটা প্রায় অসম্ভব বার্সার পক্ষে। যে কারণে ইনিয়ে-বিনিয়ে তাঁরা বিভিন্ন খেলোয়াড়কে চুক্তির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে চাইছে।

বার্সার এ আবেদনে পিএসজিও সাড়া দিচ্ছে না। এমনিতেই মার্কো ভেরাত্তি, জাভি সিমন্স, নেইমার, ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের দলবদল সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে বার্সেলোনার প্রতি একদম বিষিয়ে উঠেছে পিএসজির মন। দুই ক্লাবের সম্পর্ক একদম সাপে-নেউলে হয়ে গিয়েছে। তাই বার্সেলোনার প্রস্তাবে এত সহজে রাজি হচ্ছে না তাঁরা। গতকাল বার্সা-পিএসজি বৈঠকে তাই কোনো লাভই হয়নি।

দলবদলের বাকি আছে আরও তিন সপ্তাহ। দেখা যাক, এই সময়ে অন্য কোনো প্রস্তাব দিয়ে বার্সা পিএসজির মন গলাতে পারে কি না!

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএ

বার্সা,পিএসজি,নেইমার
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত