Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬
  • ||

ধোনিকে নিয়ে আইসিসির রসিকতায় ক্ষেপেছে ভারতীয়রা

প্রকাশ:  ১১ জুলাই ২০১৯, ১৯:৩০ | আপডেট : ১১ জুলাই ২০১৯, ১৯:৩৫
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট icon

বিশ্বকাপে ভারতের বিদায় ঘন্টা বেজে গেছে। বিদায়ের পরে চলছে বাদ পড়ার চুলচেরা বিশ্লেষণ। দূর্দান্ত ফর্মে থাকা ভারতীয় দলের এমন বিষন্ন, বিধ্বস্ত চেহারায় ভেঙ্গে পড়েছে পুরো জাতি। বিশ্বকাপ মিশন শেষে এবার ঘরে ফেরার পালা। তার আগে বিভিন্নভাবে চলছে ম্যাচের বিশ্লেষণ। শেষ ২ ওভারে ভারতের প্রয়োজন ছিল ৩১ রান। দারুণ খেলতে থাকা রবীন্দ্র জাদেজা আগের ওভারে ফিরে গেছেন, ভারতের ফাইনালে যাওয়ার পথে তখন ধোনি নামের প্রদীপটিই শুধু নিভু নিভু করে জ্বলছে। কিউই পেসার লকি ফার্গুসনের করা ৪৯তম ওভারের প্রথম বল সীমানার ওপারে পাঠিয়ে ভারতীয়দের আশা জাগিয়েছিলে মহেন্দ্র সিং ধোনি।

ভারতীয়দের কাছে ওল্ড ট্রাফোর্ডকে হয়তো তখন ওয়াংখেড়ে মনে হচ্ছিল, তখনই ঘটল ঘটনা। ওভারের তৃতীয় বলে দুই রান নিতে গিয়ে মার্টিন গাপটিলের দুর্দান্ত এক থ্রোয়ে রান আউট হন ধোনি।

ধোনির আউটে ভারতের শেষ প্রতিরোধও ভেঙে পড়ে। ম্যাচের এই টার্নিং পয়েন্টের গুরুত্ব বোঝাতে অথবা ধোনির শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচের দিকে ইঙ্গিত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও প্রকাশ করে আইসিসি। আর্নল্ড শোয়ার্জনেগারের বিখ্যাত ‘টার্মিনেটর’ চলচ্চিত্রের আইডিয়া ব্যবহার করে ভিডিওটিতে ধোনির রান আউটের মুহূর্তটিকে তুলে ধরা হয়। ফেবারিট হিসেবে বিশ্বকাপ শুরু করে সেমিফাইনাল থেকে ভারতের এমন বিদায় মেনে নেওয়া সমর্থকদের জন্য এখন সবই কষ্টকর। ভিডিওর সঙ্গে আইসিসির ‘হাস্তা লা ভিস্তা, ধোনি’ ক্যাপশনে দেওয়া এবং মার্টিন গাপটিলকে শোয়ার্জনেগারের ভূমিকা দেওয়াটা ভারতীয় সমর্থকদের কাছে ‘কাঁটা ঘায়ে নুনের ছিটা’ মনে হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাই আইসিসিকে একহাত নিয়েছেন ভারতের ক্রিকেট সমর্থকেরা।

ভিডিওটির নিচে এক টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘ভারতের বিদায়ে আইসিসিকে বেশ খুশি মনে হচ্ছে।’ এদিকে ধোনির রান আউটের বলটির সময় মাঠের ত্রিশ মিটারের বৃত্তের বাইরে ছয়জন ফিল্ডার রেখেছিলেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। নিয়ম অনুযায়ী বৃত্তের বাইরে পাঁচজনের বেশি ফিল্ডার রাখার নিয়ম নেই। কিন্তু উইলিয়ামসনের ভুলটি মাঠে থাকা আম্পায়ারদের নজর এড়িয়ে যায়। এই বিষয়টি নিয়েও আইসিসির ওপর ক্ষোভ ঝাড়েন ভারতীয়রা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের জন্য ভিডিও তৈরিতে ‘অতি’ সৃজনশীল না হয়ে বরং আম্পায়ারিংয়ের দিকে দৃষ্টি দিতে অনুরোধ করেন তারা।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এসএ

বিশ্বকাপ,ক্রিকেট,ধোনি,আইসিসি
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত