Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||
শিরোনাম

ব্যাটিং বিপর্যয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশ:  ০৫ জুন ২০১৯, ১৭:১৭
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট icon

বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। দলীয় ৮৯ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে গেছেন টপ অর্ডারের ৫ ব্যাটসম্যান।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত প্রোটিয়াদের সংগ্রহ ২৫ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১০৩ রান। মাঠে আছেন ডেভিড মিলার (১৪ রান) ও অ্যান্দেল ফেলুকাও (০৭ রান)।

বুধবার (০৫ জুন) সাউদাম্পটনে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসি। ম্যাচটি শুরু হয়েছে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ৩০ মিনিটে।

টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। দলীয় ১১ রানেই বিদায় নিয়েছেন ওপেনার হাশিম আমলা। তিনি নয় বলে ৬ রান করে ভারতীয় পেসার জাসপ্রিত বুমরাহের বলে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিয়েছেন। বিদায়ের আগে আমলা একটি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছিলেন।

এরপর প্রোটিয়া শিবিরে দ্বিতীয় আঘাত হানেন বুমরাহ। তার বলে দলীয় ২৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ১০ রানে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন আরেক ওপেনার কুইন্টন ডি কক।

দলীয় ২৪ রানে ২ উইকেট হারানোর পর দেখেশুনে খেলছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসি ও রাশি ভেন দার দাসুন। কিন্তু ২০তম ওভারের প্রথম বলে দাসুন (২২ রান) ও শেষ বলে ফাফ দু প্লেসি (৩৮ রান) আউট হন। দুইজনকেই বোল্ড আইট করেন ভারতীয় স্পিনার যুগবেন্দ্র চাহাল।

এরপর মাঠে আসেন দক্ষিণ আফ্রিকার মিডল অর্ডারের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান জেপি ডুমিনি। কিন্তু তিনিও বেশি সময় সঙ্গ দিতে পারেননি ডেভিড মিলারকে। দলীয় ৮৯ রানে ব্যক্তিগত ৩ রানে কুলদীপ যাদবের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন ডুমিনি।

আইসিসির প্রকাশিত সবশেষ র‌্যাংকিংয়ে ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকা অবস্থান করছে যথাক্রমে তিন আর চারে। ১২১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ভারতের অবস্থান দ্বিতীয় আর ভারতের থেকে মাত্র ৬ রেটিং পয়েন্ট কম ১১৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে প্রোটিয়াদের অবস্থান চতুর্থ স্থানে।

চারবারের সাক্ষাতে দক্ষিণ আফ্রিকার তিন জয়ের বিপরীতে ভারতের জয় মাত্র একটিতে। গত বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর স্মৃতি নিয়েই মাঠে নামছে ভারত, যা অনুপ্রেরণা জোগাবে বিরাট কোহলিদের। ২০১২ ও ২০১৪ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১৩ ও ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পাশাপাশি ২০১৫ বিশ্বকাপে জয় পায় কোহলিরা।

পিপিবিডি/অ-ভি

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত