Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

সামনে আরও কঠিন পরীক্ষা, দলকে সতর্ক করলেন মাশরাফি

প্রকাশ:  ০৩ জুন ২০১৯, ১০:৫৬ | আপডেট : ০৩ জুন ২০১৯, ১৪:২৪
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট icon

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে শুভ সূচনা করলো বাংলাদেশ। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে ইতিহাস গড়ল টাইগাররা। তবে প্রথম ম্যাচ জিতে শুরু করলেও মাটিতে পা রাখছেন মাশরাফি মুর্তজা। সামনের ম্যাচে আরও কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে বলে সতর্ক করলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ নিয়ে পরের ম্যাচগুলো খেলতে চান তিনি।

রোববার (২ জুন) লন্ডনের কেনিংটন ওভালে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচটিতে টাইগারদের জয়ের ধরণ দেখে একবারও মনে হয়নি অলক্ষ্যেই তারা ম্যাচটি জিতেছে বা ভাগ্যদেবী মাটিতে নেমে এসে তাদের বর দিয়েছেন। কী ব্যাটিং, কী বোলিং। প্রতিটি বিভাগেই এক পরিপক্ক বাংলাদেশকে দেখেছে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। যেন আঁকা ছকে প্রোটিয়াদের বধে মেতে উঠেছিলেন ক্রিকেট বিশ্বের দুর্বার এই দলটি। ঠিক ত্রিদেশীয় সিরিজে আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ বধের মতোই।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২১ রানের জয়কে সবচেয়ে স্মরণীয় মানছেন না মাশরাফি। দলকে সতর্ক করে তিনি বলেছেন, না (এই ম্যাচ স্মরণীয়)। আমাদের বেশ কয়েকটি স্মরণীয় ম্যাচ আছে। এটা সবচেয়ে স্মরণীয় না হলেও আমরা খুব ভালো খেলেছি। এটা আমাদের অন্যতম সেরা পারফরম্যান্স বলতে পারেন। আজ যেমন খেলেছি, সামনেও এভাবে খেলতে চাই। আমি নিশ্চিত প্রত্যেক দিন এরকম ম্যাচ হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি জানালেন, আমাদের দলের সবারই স্বাভাবিক থাকা জরুরি। মাত্র একটি ম্যাচ আমরা জিতেছি। টুর্নামেন্টের আরো ৮টি ম্যাচ বাকি। আমরা এই ম্যাচ জিতে টুর্নামেন্টের কোথাও নেই। তাই, সবাই এত উচ্ছ্বসিত হলেও আমাদের হওয়ার প্রয়োজন নেই। এখনো অনেক দূর যেতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও যোগ করেন, আমরা যদি এই টুর্নামেন্টে ভালো করতে চাই, বড় দলগুলোকে আমাদের হারাতে হবে এটা শিউর। এখানে বড় দল আছে এবং আমার মনে হয় অন্যান্য দল যাদের আমাদের থেকেও বড় করা হয়েছে তারা আমাদের সমানই। আমার মনে হয় টুর্নামেন্টে ভালো করতে চাইলে এসব ম্যাচ আমাদের জিততে হবে। আমি আগেও বললাম একটা ম্যাচ জিতে আমরা টেবিলের কোথাও নেই। হয়তবা দুই পয়েন্টে আমাদের কোনো সাহায্য করবে না। তাই নিশ্চিত করতে হবে আমরা যেন ভালো কাজটা ধরে রাখতে পারি।

মাশরাফি বলেন, শুধু পরিকল্পনা করে মরণ ছক আঁকলেই নাকি এ ধরণের বড় টুর্নামেন্টে এমন জয় ধরা দেয় না। সাথে ভাগ্যও লাগে, আমি ভাগ্যে বিশ্বাসী। পরিকল্পনা অনেক দলই করে। কিন্তু ওই পরিকল্পনাটা যে কাজে লাগে তাও না। ওখানে ভাগ্য থাকতে হয়। আপনি যদি এসব টুর্নামেন্টে সেরা ফলাফল পেতে চান অবশ্যই ভাগ্যে সহায়তা পেতে হবে। ম্যাচে যে কটা বল টার্ন করেছে সব চাইতে মূল্যবান বলটা টার্ন করেছে ফাফ ডু প্লেসিসের ক্ষেত্রে। এই উইকেটে এতখানি টার্ন হবে এটা আশা করিনি। আমি ওটাই বলতে চেষ্টা করছি এই ধরণের টুর্নামেন্টে ভালো করতে গেলে শুধু ভালো খেললেই হবে না, ভাগ্যও সাথে থাকতে হবে।

টানা চার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি করেছেন সাকিব। এই অভূতপূর্ব রেকর্ডের পর তাকে নিয়ে গর্বিত মাশরাফি, ‘সাকিব তো আমাদের সেরা খেলোয়াড়, বিশ্বেরও। শুধু এটুকুই বলবো না। সে এমন খেলোয়াড়, যাকে সবাই ভিন্ন চোখে দেখে। আমি নিশ্চিত সে নিজেও গর্বিত। আমরা প্রত্যাশা করি সে যেন সেরা ক্রিকেট খেলে যেতে পারে। টানা চার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ফিফটি, এটা অবশ্যই তার জন্য দারুণ অর্জন।’

উল্লেখ্য, ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ৩৩০ রানের পাহাড় গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২১ রানে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।

পিপিবিডি/জিএম

বিশ্বকাপ,বাংলাদেশ অধিনায়ক,মাশরাফি মুর্তজা,সংবাদ সম্মেলন,লন্ডনের কেনিংটন ওভাল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত