• রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯
  • ||

ঈদে হাবিব ভাই নেই, তার স্মৃতি বিষন্নতা ছড়াবে

প্রকাশ:  ০৪ মে ২০২২, ১০:১১
পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এমপি

বাবা হাটছেন। পেছনে আমরা ৫ ভাই। বাবা শব্দ করে পড়ছেন আল্লাহু আকবর..... ওয়ালিল্লাহিল হামদ।

সাথে আমরা ও পড়ছি। আরো লোকজন যাচ্ছেন। নতুন জামা পরা। কিছু সময় পরে পৌঁছে যেতাম সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে। এক সাথে সবাই বের হতাম বাসা থেকে। হাবিব ভাই দেরি করতো বের হতে। সাবিত ভাই সকাল থেকে রেডিওতে গান বাজাতে শুরু করতেন, রমজানেরই রোজার শেষে...। তবু এক সাথেই সবাই যেতে হতো। বাবার অলিখিত আইন।

একে একে মা-বাবা, দুই ভাই, দুই বোন চলে গেলেন আমাদের রেখে। অনন্তলোকে যাত্রা করলেন সবাই। তিন ভাই, এক বোন ভাতিজা-ভাগ্নে, সন্তানসহ ঈদের নামাজে অভ্যস্ত হয়ে গেলাম। ঈদের সময় হাবিব ভাই বাসায় আসলেই যেন পূর্ণতা পেতো ঈদ। গল্প, আড্ডা, বন্ধু, স্বজন নিয়ে আনন্দময় সময় কাটতো। গভীর রাত পর্যন্ত বাসায়-বাইরে সময় চলে যেতো।

এই ঈদে হাবিব ভাই আসবে না। আর কখনোই আসবে না। বাসার বারান্দার জমজমাট আড্ডায় প্রাণখোলা হাসির শব্দ শোনা যাবে না। ৫ ফেব্রুয়ারি বিকেলে আমার ভাই নিরব হয়ে গেছে। বাবা-মার কবরের পাশে তার নিথর দেহ শুইয়ে রেখেছি। বাড়ির মসজিদের সামনে।

এবারের ঈদে পীর হাবিব নেই। তার স্মৃতি বিষন্নতা ছড়াবে। ভাতিজি চন্দ্রস্মিতার ও লেভেল পরীক্ষা চলছে। অন্তরসহ ভাবীকে তাই ঢাকাতেই থাকতে হবে। উৎসবে, সামাজিকতায় প্রিয়জনের চির অনুপস্থিতি বেদনা ছড়ায়। তবু ঈদ। তবু আনন্দ।

এবারের ঈদে বৈশাখের ফসল জড়িয়ে আছে আমাদের জল-জোছনার সুনামগঞ্জে। হাওরে পুরো আনন্দ নেই। কিছু হাওরে বাঁধ ভেঙ্গে ফসল তলিয়ে গেছে। সদর-বিশ্বম্ভরপুরে আল্লাহর কাছে শোকরিয়া। আল্লাহর রহমত এবং সবার আন্তরিক পরিশ্রমে আমাদের ফসল কৃষকের ঈদকে পূর্ণতা দিয়েছে। আত্নসংযম, আত্মশুদ্ধির ইবাদতের মাস আজ শেষ হচ্ছে। আল্লাহ সবার অন্তর থেকে কালো দূর করুন। হিংসা,বিদ্বেষ, ব্যর্থতার গ্লানি দূর করুন। সবাইকে আলোকিত করুন।

সৌদি আরবে পবিত্র উমরা পালন শেষে দেশে পৌঁছেছি। এলাকার প্রিয় স্বজনদের নিয়ে ঈদ উদযাপন করবো ইনশাআল্লাহ। সুনামগঞ্জ সদর- বিশ্বম্ভরপুরবাসীসহ সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা।

ঈদ মোবারক।

(ফেসবুক থেকে নেওয়া)

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এমপি,ফেসবুক,ঈদ,স্মৃতি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close