• রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮
  • ||

আপনার বোধে না আসলে লকডাউন বটিকা খাওয়ালেও কিছু হবে না

প্রকাশ:  ১৬ এপ্রিল ২০২১, ২৩:৫৯ | আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০০:০৮
ফারহানা নীলা

আচ্ছা বুঝলাম আপনার করোনা হবে না। আপনি তাই মাস্ক পরছেন না। কারণ আপনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন। রোজা রাখছেন, যাকাত দেন - আল্লাহ খোদা বিশ্বাস করেন।

আপনি রোজ ঠাকুরকে ডাকেন, পূজো দেন- আপনার করোনা হবে না।

করোনা বড়লোকদের অসুখ-আপনি বড়লোক নন, টাকা পয়সা তেমন নেই-আপনার করোনা হবে না।

গরীব মানুষ রোদে কাজ করে। ইমিউনিটি ভালো- করোনা ছোঁবে না।

আপনার বয়স কম। ওসব বয়সী মানুষের রোগ- আপনার করোনা হবে না।

শিশু, কিশোর কারো করোনা হয় না! সাধারণ সর্দি-জ্বর হয়-মানলাম।

আপনি সাহসী মানুষ। কাজ করে খান-আপনার করোনা হবে না।

নারীরা ঘরে থাকে। বাইরে বের হলেও নেকাব বোরকা হিজাব পরে-করোনা হবে না মানলাম।

আপনি নামীদামী মানুষ। সবাই চেনে। আপনি সেলিব্রিটি-আপনার করোনা হবে না।

আপনি দফায় দফায় বিদেশে চিকিৎসার জন্য যান। আপনার টাকা পয়সার অভাব নেই-আপনার করোনা হবে না।

আপনি ধর্মের সব অনুশাসন মানেন। বিদেশি প্রতিষেধক ওষুধ খেয়েছেন-আপনার করোনা হবে না।

আপনি রিকশাওয়ালা, ভ্যানচালক, দিনমজুর, বস্তিতে থাকেন-আপনার করোনা হবে না।

সব মানছি। কথা সত্য -

তাহলে কাদের করোনা হচ্ছে?

কারা রোজ রোজ মৃত্যুর মিছিলে শামিল হচ্ছেন?

তাঁরা কি ভিনগ্রহ থেকে এসেছেন?

তাঁরা কি আপনাদের কেউ নন?

বিশ্বাস করুন-

আপনি কে সেটা করোনার বিবেচ্য বিষয় নয়।

করোনা নিজে বাঁচতে চায়। তাই মানবদেহ খোঁজে। মানবদেহের সংস্পর্শ না পেলে আপনাতেই মারা যায়।

শুধুমাত্র একটা সঠিকভাবে মাস্ক, সামাজিক এবং শারীরিক দূরত্ব, বারবার সাবান পানিতে হাত ধোঁয়া, ঘরে থাকা-নিষ্ক্রিয় করতে পারে করোনাকে।

লকডাউন দিলেই কী সব হলো? না কিছুই হলো না-যতক্ষণ আপনার বোধে না আসছে বিষয়গুলো ততক্ষণ লকডাউন বটিকা খাওয়ালেও কিছু হবে না।

নিজেকে সংবরণ করুন। নিজের প্রতিরোধ নিজে করুন। সরকারের কাঁধে বন্দুক রেখে আর কত গুলি করবেন? আপনার ভবিতব্য কিন্তু কেউ জানে না।

নিজেদের বিপদ নিজে ডেকে আনছেন। খাল কেটে কুমির আনছেন। হাসপাতালে ভর্তি হতে গিয়ে সিট না পেয়ে তখন বাকবিতন্ডা করছেন। এত আজীব কেন আপনারা? এত অবুঝ কেন?

হিজির হয় না কেন আপনাদের? হিজিরের দর কত? কয় তোলা হিজির হলি পর বুইঝবের পারবেন? মনকে মন হিজির হলি পরেও লাভ হবিনানে-করোনার ঠাপ তো দেখেন নাই? (পাবনার ভাষা- হিজির আর ঠাপ)

লেখক: ফারহানা নীলা, চিকিৎসক ও কবি।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


পিপি/জেআর

ফারহানা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close