• বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭
  • ||

আমাদের নিঃসঙ্গ করে আজ চলে গেল খসরু

প্রকাশ:  ১০ ডিসেম্বর ২০২০, ১৪:০৮ | আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০২০, ১৪:১২
কবি আশরাফ আহমদ
মরহুম ইফতেখার আহমেদ খসরু

জল-জোৎস্নার শহর সুনামগঞ্জ। প্রায় ৩৫ বছর, এখানে পূর্ণিমার রাতে সমস্ত সড়ক বাতি নিভে যায়, দলে দলে সব বয়সের মানুষ রাস্তায় নেমে আসে অবগাহনে। ব্যাপারটা কবি মমিনুল মউজদীনের (পৌর মেয়র, ৩ বার) হাত ধরে আসে। স্কুলের নিচু ক্লাস থেকে সে আমার বন্ধু, অসময়ে চলে গেছে সড়ক দুর্ঘটনায়, স্ত্রী-সন্তানসহ। ঢাকায় কবিরা বাঁচে ছোট ছোট বৃত্তে। সাড়ে চার দশকে আমার বৃত্ত নেই, বন্ধু নেই, আমি একা।

বৃত্ত আমার ছিল, কৈশোর-তারুণ্যের কালে। সেই বৃত্তের প্রথম বন্ধু, সবচেয়ে মানবিক, শাহরিয়ার (ইঞ্জিনিয়ারি) মারা যায় কুয়েতে, সড়ক দুর্ঘটনায়, তাও অনেক দিন আগে। আমাদের নিঃসঙ্গ করে আজ চলে গেল খসরু (ইফতেখার আহমদ)। আমেরিকার মেরীল্যান্ডে থাকত। ভাই-বোন, মা-বাবা সবাইকে স্থায়ীভাবে নিয়ে গিয়েছিল। কম বয়সের লক্ষ কোটি স্মৃতির পাশাপাশি, ২০০০ সালে আমরা আমেরিকা গেলে যে কতো জায়গায় যাবে, কতো কী দেখাবে, রীতিমতো অস্থির হয়ে গিয়েছিল। আহারে বন্ধু, দিনের ১২/১৪ ঘণ্টা আমরা ক’জন তো উন্মাতাল কাটিয়েছি বছর বছর। কতোই না অপার আনন্দে ছিলাম! এ জীবনে ওই আনন্দ আর কিছুতে ফিরল না।

ওদিকে রফিক ফ্রাংকফোর্টে বসে নানাবিধ অসুখের সাথে লড়ছে। ওর সাথেও ওখানকার স্মৃতি, বিশেষ করে জার্মান বিয়ার নিয়ে! আর কি আসবে সেই দিন! এদিকে তীতু (ফার্মাসিস্ট ইশতিয়াক আহমেদ) মোটেই আগের মতো নেই, বদলে গেছে, ফলে আমার সবচেয়ে কাছে থাকলেও কোনোদিন ওর বাড়িতে যাইনি। আর আমার বৃত্তের, প্রাণের বন্ধুদের মধ্যে রইল একমাত্র রুমী (বিচারপতি মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী), সপরিবারে মাত্র করোনামুক্ত হলো।

রুমীকে আমরা গদ্য বলতাম, নিরক্ষর বলতাম, কাঠকোট্ঠা বলতাম, কিন্তু রুমীও কাঁদে, আমিতো কাঁদি-ই। এখন আমরা যার যার বাড়িতে বসে খসরুর জন্য কাঁদছি। ও রুমী, তুই কি জানিস? আমি জানি না, আগে আমি তোর জন্য কাঁদবো, নাকি তুই আমার জন্য!

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

আশরাফ আহমেদ,সুনামগঞ্জ,মৃত্যু
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close