• মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

শ্বশুরবাড়ির পক্ষ নিয়ে মধুর ঝগড়ায় আবদুল হামিদ

প্রকাশ:  ১৪ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৪৬ | আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৫৯
এ টি এম নিজাম
যুগান্তরের কিশোরগঞ্জ অফিসে আবদুল হামিদসহ অন্যরা

একদিন ঘড়ি বন্ধ করে যুগান্তর কিশোরগঞ্জ অফিসে আমরা ভিন্ন রকম এক আড্ডায় মেতে উঠেছিলাম। আর এ আড্ডার মধ্যমণি ছিলেন দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার পরম হিতৈষী কিশোরগঞ্জের রাজনীতির বরপুত্র বর্তমান রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ।

অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ সেদিন শুনিয়েছিলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ, রাজনীতি এমনকি তাঁর ব্যক্তিগত বর্ণাঢ্য জীবনের ঘাত প্রতিঘাত, হাসি-কান্নার অম্লমধুর নানান কাহিনী।

রাজনীতি ও আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে প্রায় প্রতিদিন তাদের এমন দীর্ঘ আলোচনা-আাড্ডার আসর বসতো আমার অফিসে। ওইদিনের আড্ডার রস পর্বে প্রাণখোলা আলোচনায় মেতে ওঠে করিমগঞ্জের তিন জামাইয়ের মধ্যে আবদুল হামিদ অ্যাডভোকেট শ্বশুর বাড়ির অবস্থান নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত করেন।

এ সময় টেবিলের সামনে বসা (পাঞ্জাবি পরহিত) কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাবুদ্দিন ঠাকুর বললেন, ‘চামড়া বন্দর থাইক্যা কিশোরগঞ্জ আসতে প্রথমে আমার শ্বশুর বাড়ি না অইয়া কারও আওনের সাধ্য নাই।’

এ কথা শুনে কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক (সামনে লাল খয়েরী জামা পরহিত) লুৎফুল আরেফিন গোলাপ বললেন, ‘কিশোরগঞ্জ থাইক্যা চামড়া বন্দর যাইতে অইলে ফইলা আমার শ্বশুর বাড়ি না অইয়া যাওনের কারো উফায় নাই।’

এ কথা শেষ হতে না হতেই তদানীন্তন কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপ-নেতা অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ অনেকটা উত্তেজিত হয়ে বলে উঠলেন, ‘এবার তোমরা থামো।অনেক জারিজুরি মারছো। তোমরার কোনো বেডার সাধ্য আছে আমার শ্বশুর বাড়ি না অইয়া এমনে-হেমনে (এদিক-সেদিক) যাওনের। আমার শ্বশুর বাড়ি তোমরার শ্বশুর বাড়ির মাইজগানো। তোমরা আমার শ্বশুর বাড়ি না অইয়া এমনেও যাইতারতানা, আর হেমনেও আইতারতানা।’

আবদুল হামিদের বাগ্মিতায় দৃশ্যত অপর দুই নেতার কুপোকাত অবস্থা।

এ উত্তপ্ত রসালো আলোচনায় শেষ পর্যন্ত অবশ্য ওই তিন নেতার শ্বশুর বাড়ি এলাকা করিমগঞ্জের অধিবাসী হিসেবে আমি এবং বিটিভি'র সাংবাদিক রুহুল কুদ্দুছ সেলিম অংশ নিয়ে করিমগঞ্জের এ তিন জামাইকেই উইনার স্লিপ দিয়ে দীর্ঘ আড্ডার সমাপ্তি টেনেছিলাম।

সেদিনের (২০০৭ সালের মার্চ মাসে ) প্রানবন্ত আড্ডার অপর রস সঞ্চারক নিবেদিত প্রাণ রাজনীতিক শাহাবুদ্দিন ঠাকুর আজ আমাদের মাঝে নেই। শাহাবুদ্দিন ঠাকুর ২০০৭ সালের ১৪ অক্টোবর আজকের এই দিনে সকলকে কাঁদিয়ে অনন্ত পথের যাত্রী হয়েছেন। ওপারে ভালো থাকুন ঠাকুর ভাই। আপনার অনুপস্থিতি আমরা আজও মর্মে মর্মে অনুভব করি।

লেখক: কিশোরগঞ্জ ব্যুরো চিফ, দৈনিক যুগান্তর ও রিপোর্টার যমুনা টিভি।

আবদুল হামিদ,কিশোরগঞ্জ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close