• শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

‘মা-মেয়েকে মারধরের ঘটনায় ব্যবস্থা না নিলে হাইকোর্টের নজরে আনবো’

প্রকাশ:  ২৩ আগস্ট ২০২০, ১৮:৩৭
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাংয়ে গরু চুরির অভিযোগে বৃদ্ধ মা ও যুবতী মেয়েকে কোমরে রশি বেঁধে মারধরের ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ ব্যবস্থা না নিলে বিষয়টি হাইকোর্টের নজরে আনবেন বলে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

রোববার (২৩ আগস্ট) ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব বলেন।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, আমি জানি না যে, কী হইছিলো ওই জায়গায় গরু চুরি কী ওনারা করেছিলন কি-না। কিন্তু একটা কথা বলতে চাই, বাংলদেশের যে আইন এই আইনে কোথাও নাই গরু চুরির অভিযোগ থাকলেও বা গরু চুরি করে থাকলেও আপনি এভাবে জনসম্মুখে দুই জন মহিলাকে আপনি এ রকম রশি দিয়ে বেঁধে নিয়ে আসতে পারেন।

‘আমি কক্সবাজার প্রশাসনের কাছে বলতে চাই, আপনারা তড়িৎ এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেন, নইলে আমরা দরকার হলে প্রয়োজনে হাইকোর্টে নিয়ে আসবো। কারণ এই যে মা-মেয়েকে রশি দিয়ে বেঁধে নিয়ে আসছেন চেয়ারম্যান অফিসে, এ ছবিটা যখন আমাদের চোখের সামনে আসছে মনে হইছে যে সারা বাংলাদেশের আমাদের মা বোনদের এভাবে রশি দিয়ে টেনে নিয়ে আসছেন আপনারা। ’

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, আমরা চাই না প্রতিটা জিনিসকে হাইকোর্টের নজরে নিয়ে আসতে। আমরা চেষ্টা করবো যদি আপনারা ব্যবস্থা গ্রহণ করেন, কক্সবাজারের যে প্রশাসন যদি আপনারা ব্যবস্থা গ্রহণ করেন তাহলে আমরা এটাকে হাইকোর্টের নজরে আনতে চাই না। যদি হারবাং ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আপনারা তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ না করেন তাহলে শেষ পর্যন্ত আমরা এটাকে হাইকোর্টে নিয়ে আসতে বাধ্য হবো। আমি প্রশাসন এবং এখানে যিনি ডিআইজি আছেন তার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি যত দ্রুত সম্ভব ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

এদিকে এ ঘটনায় গরুর মালিক চকরিয়ার হারবাং ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মো. মাহবুবুল হক চকরিয়া থানায় মামলা করেছেন। মামলায় এ দুই নারী এবং অজ্ঞাত সিনএজি চালকসহ ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে। বর্তমানে পাঁচজনই কারাগারে রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার (২২ আগস্ট) রাতে কক্সবাজারের চকরিয়ার হারবাংয়ে গরু চুরির অভিযোগে বৃদ্ধ মা ও যুবতী মেয়েকে কোমরে রশি বেঁধে মারতে মারতে এলাকায় ঘুরিয়েছে স্থানীয় লোকজন। পরে সেখান থেকে তাদের হারবাং ইউনিয়ন পরিষদে এনে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এ রকম একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পাশাপাশি এ ঘটনা নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জেডআই

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close