• বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

আপনার যেভাবেই মৃত্যু হোক ময়না তদন্তের রিপোর্টে আসবে শ্বাসকষ্ট

প্রকাশ:  ০৫ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৪৮
জান্নাতুম নাইম প্রীতি

করোনা মহামারীতে মহা পরাক্রমশালী আমেরিকা একলাখ ডেডবডি রাখার ব্যাগ অর্ডার করছে। গার্মেন্টস খুলে দেয়ায় সবচেয়ে প্রথমে সেই ব্যাগ বানানোর কারিগর বাংলাদেশের গার্মেন্টস শ্রমিকরা শহীদ হবে, এইভাবে ভাবেন। করোনা আক্রান্ত হলে সেই শ্রমিকদের লাশ ক্যারি করার ব্যাগ বানাবে কি গার্মেন্টস মালিকরা?

নিউইয়র্কে লাশ দাফন করার জায়গা নাই, ইকুয়েডরের রাস্তায় রাস্তায় লাশ পড়ে আছে, কেউ ছুঁয়ে দেখতেও সাহস পাচ্ছে না! অথচ বাংলাদেশে গার্মেন্টস মালিকরা গার্মেন্টস কর্মীদের ফিরিয়ে আনছেন, চা বাগানের মালিকরা চা শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করাচ্ছে! করোনার জন্য শ্রমিকেরা ছুটি চাইলেও কিচ্ছু হচ্ছে না।

কাতারে কাতারে শ্রমিক মরলে মালিক জানে রাষ্ট্র তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে না। কারণ এই রাষ্ট্র ব্যবস্থা টিকেই আছে কেবল বদমায়েশিতে সুবিধা দেয়া নেয়ার মাধ্যমে। তাদের এতো সময় কই? রাষ্ট্র গার্মেন্টস মালিকদের হাতে টাকা দেয়, সেইটা রাষ্ট্রের পলিসি মেকারদের বাপের টাকা না। আমার আপনার ট্যাক্সের টাকা। কিন্তু গার্মেন্টস মালিকরা সেই টাকা কি শ্রমিকদের হাতে দেয়?

এই পর্যন্ত করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ। অথচ এককালে শেতাঙ্গরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় আদিবাসীদের হত্যা করার জন্য বসন্ত রোগীদের ব্যবহার করা কম্বল উপহার হিসেবে পাঠাতো। সরল আদিবাসীরা সেইসব কম্বল ব্যবহার করতে গিয়ে বসন্ত রোগে মারা পড়তো। Guns, Germs and steel বইতে জ্যারেড ডায়মন্ড লিখেছেন- শুধুমাত্র ভৌগলিক ডায়ালেক্টের দোহাই দিয়ে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে কিভাবে একটা বিশেষ শ্রেণির মানুষকে বঞ্চিত করা যায়।

২০০৪ সালে শান্তিতে নোবেল প্রাইজ লরিয়েট আফ্রিকান প্রথম নারী ওয়াংগারি মাথাই যেমন বলেছিলেন- আমি বিশ্বাস করি এইচআইভি নামক ভাইরাসটি আফ্রিকান কালো মানুষদের মারতে পশ্চিমা শক্তি যুদ্ধাস্ত্র হিসেবে তৈরি করেছে!

শুনতে অবিশ্বাস্য লাগতে পারে কিন্তু পৃথিবীর নানা দেশের কাছে যে পরিমাণ মানব বিধবংসী অস্ত্র আছে সেইটা দিয়ে মানবসভ্যতা একবার না, কয়েক বার ধ্বংস করে ফেলা যায়। অথচ মানবসভ্যতা বাঁচানোর জন্য তাদের প্রতিরক্ষা ব্যাবস্থা কি? উত্তর হতে পারে সামরিক খাতে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ।

অথচ যে সৈনিকরা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে তারা সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ জেনারেলরা না, হাসপাতালগুলির নিরীহ নার্স আর ডাক্তাররা। তারা এফেক্টেড হচ্ছে কিন্তু হাল ছেড়ে দিচ্ছেনা। অথচ পর্যাপ্ত গোলাবারুদ থাকলেও সারা দুনিয়ার একটা দেশের পর্যাপ্ত মেডিকেল সাপোর্ট নাই!

এই ভয়ংকর সময়েও সৌদি আরব বোমা ফেলছে ইয়েমেনে, মানুষ মারছে, যে নারীরা স্বাধীনভাবে কথা বলতে চেয়েছিল তাদের আটকে রাখছে নিজেদের জেলে। তাদের হজ্জের বিজনেস থেমে গেছে কিন্তু মানুষ মারার পলিসি থামে নাই!

সোনার বাংলাদেশ সাড়ে আট হাজার কোটি টাকার আর্মস ডিল করেছে রাশিয়ার সাথে, কিন্তু ৫শ’ আইসিইউ বেড বানায় নাই!

স্টিফেন হকিং বলেছিলেন- আগামী দুই শতাব্দীর মধ্যে পৃথিবীতে মানুষের অস্তিত্ব থাকবে না। মানুষ ছাড়া কোনও প্রাণী নিজেদের এরকম ধ্বংস করে আনন্দ পায় না।

প্রকৃতিতে সাধারণ একটা মাছির গায়ে গড়ে সাড়ে বারো লক্ষ করে জীবাণু থাকে। একটা মাছির গায়ে যে পরিমাণ জীবাণু থাকে সেই পরিমাণ আইসিইউ বেড দুনিয়ায় কোনও দেশের হাতে কি আছে? উত্তর হচ্ছে- নাই।

আপনার উচিত এই পলিসি মেকারদের গলা টিপে ধরা। এরা পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্ট আমাজন জ্বালিয়ে দিয়েছে, প্রকৃতির পক্ষে কথা বলা আদিবাসীদের হত্যা করেছে, সুন্দরবনের পাশে বিদ্যুৎকেন্দ্রের অনুমোদন দিয়েছে, বর্জ্য তৈরি করেছে টনকে টন, আপনার ট্যাক্সের টাকা মেরে খেয়ে সুইস ব্যাংকে ভরেছে, আদিবাসীদের জমি দখল করে রিসোর্ট বানিয়েছে।

উন্নয়নের দোহাই দিয়ে দুনিয়ার তাপমাত্রা বাড়ায়ে এরা কেবল কোভিড- ১৯ না, অসংখ্য টাইম ট্রাভেলিং ভাইরাস আর ব্যাকটেরিয়া প্রকৃতিতে ছেড়ে দিছে।

উন্নয়ন আর পদ্মাসেতুর পিলার দেখানো, জিডিপি আর মেট্রোরেল দেখানো পলিসি মেকারদের বলেন ডাক্তারদের পিপিই আর টেস্টিং কিট কই?

তিন মাস সময় পেয়েও ৭টন আতশবাজি ফোটানো পলিসি মেকারদের গিয়ে জিজ্ঞেস করেন- প্রতিটি রেস্ট্যুরেন্টের বিলে ১৫% ট্যাক্স দিছি, প্রতি ১শ’ টাকা মোবাইল রিচার্জে ২২টাকা ৭২ পয়সা দিছি, সেই টাকা কোথায়? হাউ ডেয়ার ইউ!

হয় পলিসি মেকারদের গলা টিপে ধরেন নাইলে নিজেরটা ধরেন। কারণ এইদেশের সংবিধান অনুযায়ী আপনার যেভাবেই মৃত্যু হোক, ফৌজদারী কার্যবিধি অনুসারে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে সবার সাথে একটা ঘটনা কমন থাকবে, সেইটা শ্বাসকষ্ট!

আপনাকে গুলি করে দিলেও, আপনি করোনায় মরলেও! Now decide how you want your death! যা করার এখনই করেন, বুঝলেন?

(লেখকের ফেসবুক থেকে নেয়া)

শ্বাসকষ্ট,রিপোর্ট,ময়না তদন্ত,মৃত্যু,করোনাভাইরাস,জান্নাতুম নাইম প্রীতি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close