• শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

এপ্রিলের প্রথম ও দ্বিতীয় সপ্তাহ বাংলাদেশের জন্য কঠিন সময়!

প্রকাশ:  ২৮ মার্চ ২০২০, ২০:৩৬ | আপডেট : ২৮ মার্চ ২০২০, ২০:৪৪
বিজন সরকার
বিজন সরকার

যদি ইনফেকশাসগুলোকে কনফাইন্ড না করা যায় বাংলাদেশের অবস্থা করোনার ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ হবে।

এক, শ্বাসকষ্ট নিয়ে বগুড়ায় ব্যবসায়ী মারা গেলেন। উনি ঢাকায় ব্যবসা করতেন। উনি ঢাকা থেকে ২৪ তারিখে করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়ী ফিরেন। পরে তিনি স্ত্রীর ভাড়া বাড়িতে যান। সেখানেই মারা যান। উনি বাড়িতে এবং পরে স্ত্রীর বাড়িতে যাওয়ায় রাস্তায় না জানি কতজনকে করোনা উপসর্গ দিয়ে গেলেন। তিনি কারো না কারো দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিলেন। আমাদের যা সক্ষমতা তাতে সেই প্রাইমারী হোস্টকে বাহির করা সম্ভব নয়। সেই হোস্টও হয়ত শতশত মানুষকে করোনা উপসর্গ বিলি করছেন।

দুই, ঠাকুরগাঁওয়েও জ্বর-শ্বাস কষ্টে ভুগছে একই পরিবারের তিনজন। তাদের জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও সাথে পাতলা পায়খানা। তাদের ইতিহাস হলো, ঢাকা দক্ষিণের যুবলীগের পিকনিকে গিয়েছিলেন মাদারীপুরে।সেখানে থেকে আসার পরপরই জ্বরে আক্রান্ত হয়।

উনি শুক্রবার রাতে পঞ্চগড় এক্সপ্রেসে ঠাকুরগাঁও ফিরেছেন। উনিও ট্রেনে করোনা বিলি করতে করতে ঠাকুরগাঁও গিয়েছেন। আর আগের বিষয়টি আরও পরিষ্কার। উনার মত যুবলীগের পিকনিকে উপস্থিত অনেকেই করোনার করুণা পেয়েছেন।

এই পিকনিকে কেন্দ্রীয় কেউ কি ছিলেন? অনেকেই হয়তো নাপার উপরে বিশ্বাস রাখছেন। তবে শেষ রক্ষা হবে না।

আকিজ গ্রুপের হাসপাতালবিরোধী গোষ্ঠীকে যে কোন ভাবেই হোক প্রতিহত করতে হবে। আকিজের পাশে দাঁড়ান।

(লেখকের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close