• শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০, ২৭ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

আজ নতুন পাঁচজন রোগী সনাক্ত, একজনের অবস্থা আশংকাজনক

প্রকাশ:  ২৬ মার্চ ২০২০, ২০:৫৫ | আপডেট : ২৬ মার্চ ২০২০, ২১:০১
ফারহানা নীলা

সুপ্তিকালীন সময় পাড়ি দিচ্ছে করোনা ভাইরাস আপনার/আমার দেহে। চক্রবৃদ্ধি হারে রোগ আর রোগী বাড়তে থাকবে। আমরা হয়তো এখন তৃতীয় ধাপে!

* যারা নিয়মিত ইনহেলার ব্যবহার করেন,

* যারা নিয়মিত নাকে স্প্রে বা ড্রপ ব্যবহার করেন

* যারা নিয়মিত চোখে ওষুধ ব্যবহার করেন

প্লিজ ওষুধ গুলো নিরাপদ স্থানে রাখুন। স্যানিটাইজার দিয়ে ওষুধের কৌটা পরিষ্কার করুন। ব্যবহার করার পূর্বে নিয়ম করে নির্দেশনা মোতাবেক হাত ধুয়ে নেবেন।

কারণ একটাই... করোনা ভাইরাসের প্রবেশপথ চোখ, নাক, মুখ।

আমাদের কাছে কোনো অস্ত্র নেই, বাহিনী নেই..

অথচ অদেখা শত্রুর আক্রমণে ক্ষয়ক্ষতি সীমাহীন।

আমাদের যুদ্ধ ক্ষেত্রও বিস্তৃত। তবুও জানি যুদ্ধের সময় পেছানোর পথ থাকে।

আত্মরক্ষার কৌশল শিখে নিতে হয়।

এখন আমরা ঘরে সময় কাটাচ্ছি। হয়তো এমন নিরবিচ্ছিন্ন সময় আমরা অনেকদিন পাইনি। ঘরে আছি বলেই সুরক্ষিত আছি তাও কিন্তু নয়।

ঘরে কাউকে প্রবেশাধিকার দেবেন না। নিজে কারো ঘরে যাবেন না। বাসায় আড্ডার নামে হৈ-হুল্লোড় করে সময় কাটাতে গিয়ে বিপদে পড়বেন।

মনে রাখবেন সমাজিকতার সময় এটা নয়। জীবন বাঁচলে সব হবে ইনশাআল্লাহ।

আর হয়তো অনেক কিছুই এখন বা আর কয়দিন পর কেনার জন্য হাতের নাগালে থাকবে না। হয়তো টাকার যোগানও ফুরিয়ে আসবে।

কৃচ্ছতাসাধন বলে যে কথাটি আছে.... শুরু করুন।

কতটা কমে চলা যায়, চালানো যায়... আজ থেকেই শুরু হোক।

মশার উপদ্রব বেড়েছে। মশার কয়েলটা, এরোসোলের কৌটোটা, অথবা অন্য কিছু ধরে হাত ধোয়ার কথাটা মাথায় রাখতে হবে।

এমনকি নিষিদ্ধ সিগারেটের প্যাকেটটা (যেটা আপনি আর খাবেন না বলে আশা করছি) বাজার থেকে এনে বাইরের সেলোফিনটা ফেলে দিন। হাত সাবান দিয়ে ধুতে ভুলবেন না।

সবার কিন্তু মাস্ক ব্যবহারের দরকার নেই। যাদের হাঁচি-কাশি আছে তারা মাস্ক পড়ুন। কারণ আমরা মোটেই অভ্যস্ত নই মাস্কে।বারবার খুলছি, বারবার পড়ছি... হাত দিয়েই তো ধরছি। ক্ষতি কিন্তু হয়ে গেলো,আপনি টেরও পেলেন না। হাতিই যখন শত্রু.... তখন বেশী সাবধানতা জরুরী।

প্লিজ বড় নখ রাখার দরকার নেই। নখগুলো কেটে ফেলুন। সাজগোজ পরেও করতে পারবেন। নখের ভেতর করোনা যদি থাকে, তবে কিন্তু শেষ।

আগামীকাল জুম্মাবার। প্লিজ ঘরে নামাজ পড়ুন। আল্লাহ নিশ্চয়ই ক্ষমাশীল।

আর দূরে থাকুন

দূরের থাকুন

দূরেই থাকুন!

ভাল থাকুন, সুরক্ষিত থাকুন। নিশ্চয়ই আল্লাহ হেফাজতকারী।

যার যার ধর্মীয় আচার পালন করুন। এখনই সময়.....

মনে রাখবেন জীবন সুন্দর, বড় সুন্দর। আসুন জীবনকে ভালবাসি...

সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান

ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগ

জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, মহাখালী, ঢাকা।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


পূর্বপশ্চিমবিডি/কেএম

করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close