• বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

উন্নয়ন কর্মকাণ্ড শুরু হলেই তারা দুর্নীতি বলে চিৎকার করেন

প্রকাশ:  ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৫৪ | আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:০৮
আশরাফুল আলম খোকন
প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব: ছবি সংগৃহীত

তখনও কোনও অর্থ ছাড় হয়নি, অভিযোগ করা হলো পদ্মা সেতুতে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে। যেখানে কোনো অর্থই ছাড়ই হয়নি, সেখানে দুর্নীতি কিভাবে হলো এই চিন্তা কারও মাথায় ঢুকেনি। দুর্নীতির ষড়যন্ত্র দেশ ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায় পর্যন্ত চলে গেল। সুশীল সমাজ তোলপাড় শুরু করে দিল, দুর্নীতি দুর্নীতি বলে চিৎকার করলো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চ্যালেঞ্জ করলেন, নিজেরাই মামলা করে অবশেষে কানাডার কোর্টেও পরাজিত হলো বিশ্বব্যাংক।

বিশ্বব্যাংক তাদের ভুল বুঝতে পেরেছে, কিন্তু দেশিয় যারা তাদের পক্ষে চিৎকার করেছিল তারা কিন্তু ওই অপপ্রচারের জন্য একটুও অনুশোচনা করেনি।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়েও প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজের বরাদ্ধ দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই আনু মোহাম্মদ গংরা আবার দুর্নীতির চিৎকার শুরু করেছে। বরাবরের মত তাদের সাথে এবারও যোগ দিয়েছে জামাত-বিএনপি। তারা বলছেন, সেখানে দুর্নীতি হয়েছে। বিশাল অংকের টাকার লেনদেন হয়েছে। অথচ সেখানে এখনো কোন টাকাই ছাড় হয়নি। আপনারা কি কেউ এই বিশাল বিজ্ঞ ব্যক্তিবর্গকে জিজ্ঞেস করবেন, যেখানে কোন অর্থই ছাড় হয়নি সেখানে দুর্নীতির টাকার লেনদেন হলো কিভাবে ?

দেশে যেকোন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড শুরু হলেই তারা দুর্নীতি দুর্নীতি বলে চিৎকার শুরু করেন। উন্নয়ন দেখলেই তাদের গা জ্বালা করে কেন? তারা বাংলাদেশে বাস করে কোন দেশের এজেন্ডা বাস্তবায়নের অপচেষ্টা করেন ?

ফেসবুক স্ট্যাটাস

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এআর

উন্নয়ন কর্মকাণ্ড,আশরাফুল আলম খোকন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত