• শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

আমার জেদি বউ ও ট্রাফিক আইন

প্রকাশ:  ০৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:১৮
আকিদুল ইসলাম

বাংলাদেশের নতুন ট্রাফিক আইন নিয়ে প্রচুর কথা হচ্ছে, লেখালেখি হচ্ছে। প্রায় সকলেই একমত যে, নতুন আইন সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনবে। সড়ক হবে নিরাপদ। আমি এর আগেও বহুবার বলেছি, বহুবার লিখেছি যে, যতদিন পর্যন্ত আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত না হবে ততদিন পর্যন্ত কোন আইনেরই কোন মূল্য নেই। দুটো উদাহরণ দেই।

১ . ঢাকার টিকাটুলিতে একটি রাস্তায় আমাদের ড্রাইভার বেআইনি ইউটার্ন নিলে ট্রাফিক সার্জেন্ট আটকে দিলেন। গাড়ির কাগজপত্র নেবার সময় বললেন, ড্রাইভার তুমি আমার সাথে আসো। ড্রাইভার ফিরে এসে বললেন, আপা, ৭০০ টাকা দেন। আমার বউ বললেন, সার্জেন্টকে বলো, আইনগত ব্যবস্থা নিতে। আমি ঘুষ দেবো না। ড্রাইভার গিয়ে তা জানালো সার্জেন্টকে। এবার দেখলাম, ড্রাইভারের সাথে আসছেন একজন ট্রাফিক পুলিশ। তিনি এসে বললেন, আপা ঝামেলা বাড়িয়ে লাভ নাই, ৫০০ টাকায় ফয়সালা করে ফেলেন। আমার একরোখা বউ ফয়সালা করলেন না।

২ . আমার বউ তার প্রিয় ময়না পাখির খাবার কিনতে গেছেন কাঁটাবনে। ওখানে শত শত দোকান থাকলেও কোন বৈধ পার্কিং ব্যবস্থা নেই। তিনি গাড়ি রেখে দোকানে গেলেন। ফিরে এসে দেখেন সার্জেন্ট দাঁড়িয়ে আছেন। ঘটনা আগের মতোই। সার্জেন্ট বললেন, ৯০০ টাকা দেন। না হলে ফাইন দেবো। আমার জেদি বউ বললেন, ফাইন দেন। সার্জেন্ট রাগে ক্ষোভে ফাইন লিখতে লিখতে বললেন, আপনার মত বোকা গাড়ি চালক জীবনেও দেখি নাই। আপনার সুবিধা আপনি না বুঝলে আমার কি?

৩ . বাংলাদেশে গাড়ির হেডলাইটের উপরের অর্ধেক অংশে নাকি কালো দাগ থাকতে হয়। আমাদের গাড়ির ছিল না l সার্জেন্ট ধরে 'আপস মীমাংসা' করতে চাইলেন। আমার আপসহীন বউ সে পথে গেলেন না। পুনশ্চ : আমার বউ সার্জেন্টকে ৭০০ টাকা না দিয়ে ১৭০০ টাকা ফাইন দিয়ে তার সততা আর জিদ বজায় রেখেছেন। কিন্তু নতুন ট্রাফিক আইনের কারণে তিনি যখন দেখবেন, ১০ হাজার টাকা আর ৬ মাসের জেলের পরিবর্তে ১৫০০ টাকায় 'আপস মীমাংসা' করা যাচ্ছে তখনও কি তিনি জিদ, সততা আর একরোখা মনোভাব রাখতে পারবেন? হয়তো তিনি পারবেন কিন্তু তার মত আর কতজন আছেন বাংলাদেশে? সংখ্যাটি অবশ্যই বেশি নয় l আইন পরিবর্তনের আগে আসলে প্রয়োজন রাষ্ট্রীয় কাঠামো আর আইন প্রয়োগকারীদের চরিত্রের পরিবর্তন। লাইসেন্স ছাড়া জরিমানা বাড়িয়েছেন ভালো কথা, বিআরটিএ তে লাইসেন্স এর ঝামেলা আর দালাল মুক্ত করেন l অবৈধ পার্কিং এ ৫০০০ টাকা জরিমানা করেছেন ভাল কথা, আমাকে বৈধ পার্কিং এর জায়গাটা দেন। ট্রাফিক সংকেত না মানলে ১০০০০ টাকা, তাইলে লাল-সবুজ বাতি ঠিক করেন। যত্রতত্র রাস্তা পারাপার করলে ১০০০০ টাকা, তাইলে পর্যাপ্ত ফুটওভারব্রীজ দেন। কিন্তু একথা কে কাকে বোঝাবে আর কেউ কি বুঝবে?

ফেসবুক থেকে সংগৃহীত।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এস.খান

আকিদুল ইসলাম,ট্রাফিক আইন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত