• মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

‘সুবিধাবাদীদের একমাত্র অস্ত্র ভিন্নমতের কাউকে পেলেই জামাত-শিবির ট্যাগ দেয়া’

প্রকাশ:  ০৮ অক্টোবর ২০১৯, ১১:৫০
মারিয়া সালাম

আমার আগের এক অফিসে আমাকে আমার এক সিনিয়র বলেছিলেন, আপনি সাংবাদিকতা ছেড়ে জামাতের ওয়েব সাইট চালান গিয়া।

আমার অপরাধ, জামাতকে নিয়ে একটা নিউজের ইন্ট্রোতে তার আর আমার মতের মিল হচ্ছিল না। বাংলাদেশে সুবিধাবাদীদের একমাত্র অস্ত্র হয়ে গেছে, ভিন্নমতের কাউকে পেলেই তাকে জামাত বা শিবির ট্যাগ দেয়া।

সম্পর্কিত খবর

    একবার এক ছোটভাই বলল, আপা একটা শিবির ধরে ওরে নিয়ে আমরা ওর মাথায় এক ঝুড়ি ইট ঢেলে দিয়েছিলাম।

    আমি বললাম, শিবিরকে পছন্দ করবেন না বা তাদের ষড়যন্ত্রমূলক কার্যক্রমকে প্রতিহত করবেন, তাই বলে শিবির পেলেই আইন নিজে হাতে তুলে নিবেন?

    সে বলেছিল, আপা আপনি জামাতিগো মতো কথা বলেন, আপনার সাথে তর্ক করা যাবে না।

    আরেকবার এক সহকর্মী একটা লেখা দিল পরিবেশের উপরে, খুব একটা খারাপ লেখা না, ইংরেজিটা একটু ঠিকঠাক করলেই হয়ে যায়। আমি বললাম কাল ছাপাবো।

    এরপরে, প্রায় চার থেকে পাঁচজন সহকর্মী এসে বলল, ওর লেখা দিবেন না আপা, ও শিবির।

    আমি বললাম, লেখায় তো শিবির নিয়ে কিছু নাই, আর শিবির এখানে নিয়োগ পেল কিভাবে?

    ওরা বলল, ওরে যে নিয়েছে সেও শিবির।

    অথচ, আমি জানি ওর নিয়োগকর্তা জীবনে কোনদিনও শিবির দূরে থাক, কোন রাজনীতিই করে নি।

    পরে শুনলাম, এইটুকু তর্ক করেছিলাম বলে, তারা সন্দেহ করেছিল আমিও শিবির। কি অদ্ভুত!

    কি এক আজব কালচার আমাদের, কারো কথা পছন্দ না হলেই জামাত বা শিবির ট্যাগ দিয়ে দি আমরা। বুয়েটের যে ছেলেটিকে হত্যা করা হয়েছে, সে শিবির ছিল না৷ তার পুরা পরিবার ছিল আওয়ামী লীগ ঘেষা, অথচ তাকেও শিবির বলে পিটিয়ে মেরে ফেলা হলো। (লেখকের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

    লেখক: মারিয়া সালাম,

    ইনচার্জ, ইংরেজী বিভাগ,

    দৈনিক কালের কন্ঠ।

    /এসএইচ

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close