Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||

‘আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ তেতুল হুজুরকে টেক্কা দিয়েছেন’

প্রকাশ:  ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৩২
বহ্নিশিখা জামালী
প্রিন্ট icon

আলোকিত মানুষ গড়ার কারিগর বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রধান আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ তেতুল হুজুরকে টেক্কা দিয়েছেন। ৩০ আগস্ট জনপ্রিয় দৈনিক প্রথম আলো'র 'অন্য আলো'তে প্রকাশিত তার 'শাড়ি' নিবন্ধে শাড়িকে 'পৃথিবীর সবচেয়ে যৌনাবেদনপূর্ণ অথচ শালীন পোশাক' হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন। শাড়ি আর নারীর যুগলবন্দী বর্ণনা করতে যেয়ে শাড়ি পরিহিতা নারীর 'উঁচু - নীচু ঢেউ' কিভাবে 'অলৌকিক বিদ্যুৎ হিল্লোল' বয়ে আনে তার যে রগরগে বর্ননা দিয়েছেন তা তেতুল হুজুরদের মত ব্যক্তিদেরকেও হার মানায়।

কাব্য সাহিত্যে শ্লীল - অশ্লীল একটি প্রায় চিরায়ত বিতর্ক। এই বিতর্ক এখন থাক। একটি জনপ্রিয় দৈনিক এই লেখা প্রকাশ করে কতটা দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছে আপাতত সেই প্রশ্নও তুলছি না। কিন্তু পুরো লেখার মধ্যে নারীর, বিশেষ করে বাংগালী নারীর দৈহিক গডন, উচ্চতা, গায়ের রং এবং তার সাথে শাড়ি যুক্ত করে তিনি যেসব মন্তব্য করেছেন তা যে সত্যিই অশ্লীল, অরুচিকর ও চরম পুরুষতান্ত্রিক তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

একজন আলোকিত, বিদগ্ধ, রুচিবান মানুষ এই যুগেও কিভাবে চিন্তা আর মনের গভীরে পশ্চাৎপদ পুরুষতান্ত্রিকতা লালন করেন তা রীতিমতো বিস্ময় জাগায়। 'আলোর ফেরিওয়ালা' মানুষটির আসল চেহারা যদি এই হয় তাহলে আমাদের সমাজে কথিত অন্যান্য সুশীল, রুচিবান আর সংস্কৃতিবানদের কি অবস্থা! বোঝা যায় আমাদের অধিকাংশই মুখোশধারী, লোকদেখানো ফুটানি। কবে আমরা নারীকে পূর্ণ মানুষ হিসাবে দেখতে শিখবো?

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

বহ্নিশিখা জামালী
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত