• শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
  • ||

থলেতে টাকা নেই, ব্যাংকগুলোর অবস্থা খারাপ: গয়েশ্বর

প্রকাশ:  ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:৩৯
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, নির্বাচন কমিশন প্রসঙ্গে গয়েশ্বর বলেন, সরকার ইভিএম কিনবে। আর কিছুদিন পর নির্বাচন কমিশনের বেতন দেবে কোথা থেকে সেটাই তো প্রশ্ন। থলেতে টাকা নেই, ব্যাংকগুলোর অবস্থা খারাপ। দুদক যেখানে সেখানে হানা দিচ্ছে টাকার জন্য। চীন বা বিশ্বব্যাংক তো বিনিয়োগ করবে ব্যবসায় বা উন্নয়নের পেছনে। সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন দিতে তো তারা ঋণ দেবে না। কিছুদিন পর সরকার কর্মচারীদের বেতন দিতেই হিমশিম খাবে।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বাংলাদেশ সিভিল রাইটস সোসাইটির ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ‘গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষায় গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, সরকার ভাবছে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে বিএনপিকে যদি নির্বাচনে আনা যায়, তাহলে কেমন দেখা যায়। এমন কথাও আমাদের কানে আসছে, খালেদা জিয়া মুক্ত হলে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কি না।

তিনি বলেন, আমার কথা হলো, খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি দিলে সরকার নিজেই ক্ষমতায় থাকবে কি না? খালেদা জিয়া কি এতো বোকা? তিনি আপসহীন। নৈতিকতাবিরোধী কোনো কাজ তাকে দিয়ে করানো সম্ভব নয়। এখানেই আমাদের শক্তি। আমাদের জন্য মাথা নত করার প্রশ্নই আসে না। আর আমরা যদি মাথা নত না করি, তাহলে শেখ হাসিনার জন্য আরেকটি নির্বাচন করে ক্ষমতায় আসা সম্ভব নয়।

সরকার গণমাধ্যমকে ব্যবহার করছে উল্লেখ করে গয়েশ্বর বলেন, সরকার গণমাধ্যমকে ব্যবহার করছে। কোনো সরকার যখন অবৈধভাবে ক্ষমতায় থাকে, তখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে নিজের জন্য ব্যবহার করে। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও সরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে যে ব্যবধান আছে, বর্তমান সরকার এটি ভুলে গেছে। এ কারণে সরকার এমন কিছু প্রতিষ্ঠানকে ব্যবহার করছে, সেগুলো কিন্তু সরকারি প্রতিষ্ঠান না। যেসব সংস্থাকে সরকার ব্যবহার করছে, সব কিন্তু সরকারি সংস্থা না।

‘অনেক সাংবাদিকই আছেন যারা সত্য কথা বলতে চান, কিন্তু পারেন না। এই সরকারের আমলে অনেক সাংবাদিক মামলা খাচ্ছে, হামলা হচ্ছে, গুম হচ্ছে। আবার অনেক সাংবাদিক স্বাবলম্বীও হচ্ছে। কিন্তু একথা সত্য যে, বিএনপি সরকারের আমলে সাংবাদিকদের নির্যাতনের শিকার হতে হয়নি।’

তিনি বলেন, বিদেশে ১০ লাখ কোটি টাকা পাচার হয়েছে। প্রশ্ন হলো, টাকা কোথা থেকে আয় হয়েছে? সেটাতো লুটপাটের টাকা। যদি ওই টাকা দেশে থাকতো, যদি বিনিয়োগ হতো, মানুষের কর্মসংস্থান হতো, তবে টাকাও বাড়তো, দেশও সমৃদ্ধ হতো। কিন্তু তারা তো চুরি করে টাকা বাইরে পাচার করেছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়,বিএনপি,টাকা,ব্যাংক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Latest news
close