• শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ৭ মাঘ ১৪২৮
  • ||

মুরাদের পদত্যাগ নিয়ে যা বললেন তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশ:  ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:৫৫
নিজস্ব প্রতিবেদক

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া ডা. মুরাদ হাসানের সংসদ সদস্য পদ চাইলেই যে কেউ বাদ দিতে পারবে না।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দফতরে একজন সাংবাদিকের করা প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

ডা. মুরাদ হাসান দলের এমপি আছেন, আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ ও জামালপুর জেলায়ও তার পদ রয়েছে। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এ বিষয়টি কিভাবে দেখছেন- এ প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের জেলা স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক। সে বিষয়ে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগ বলতে পারবে, সে বিষয়ে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন। আর দলের বিষয়টি দল বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবে। যেহেতু তিনি জেলা আওয়ামী লীগের একজন কর্মকর্তা, সেটা জেলা আওয়ামী লীগ সিদ্ধান্ত নেবে। এ মুহূর্তে এর বেশি কিছু বলা সমীচীন হবে না।

মুরাদ হাসানের সংসদ সদস্য পদ নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সংসদ সদস্য জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে। সংসদ সদস্য পদ থেকে চাইলেই যে কেউ তাকে বাদ দিতে পারবে না। জনগণের ভোটে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

মন্ত্রণালয়ের কাজে ডা. মুরাদ সহযোগিতা করেছেন বলেও জানান তিনি মন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, ডা. মুরাদ হাসান আমাকে সব সময় সহযোগিতা করেছেন। এজন্য তাকে আমি ধন্যবাদ জানাই। মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তিনি আমাদের কোনো কাজে বাধা হয়ে দাঁড়াননি। বরং সব সময় সহযোগিতা করেছেন। আমি তার মঙ্গল কামনা করি এবং তিনি যেন ভবিষ্যতে শারীরিকভাবে সুস্থ থাকেন, সে কামনা করি।

মুরাদ হাসানের মধ্যে আপনি কী পরিবর্তন দেখেছিলেন জানতে চাইলে হাছান মাহমুদ বলেন, দেখুন, আমার কাছে মনে হয়েছে তিনি আগে যে রকম ছিলেন। গত তিন মাস ধরে একটা পরিবর্তন আমার কাছে মনে হচ্ছিল। বিভিন্ন ঘটনা ও কর্মকাণ্ডে আমরা সেটি মনে হচ্ছিল।

মুরাদ হাসান বলেছেন তিনি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েই বক্তব্য দেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে হাছান মাহমুদ বলেন, আমার জানা নেই। আমি জানি না প্রধানমন্ত্রীকে এ সমস্ত কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী সবসময় এই ধরনের কথা বলা অ্যালাও করেন...আমি প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবেও কাজ করেছি। দল বিব্রত হয়, সরকার বিব্রত হয় এই ধরনের কথা ও কর্মকাণ্ড প্রধানমন্ত্রী কখনও কারো জন্য অ্যালাউ করেন না।

সংসদ সদস্য পদের বিষয়ে কী হবে- এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, সংসদ সদস্য জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। সংসদ সদস্য তো কেউ চাইলেই বাদ দিতে পারবে না।

আপনি কী মনে করেন না মুরাদ হাসান মানসিকভাবে সুস্থ নন- এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, মুরাদ হাসান আমাদের সবসময় সহযোগিতা করেছেন। এজন্য তাকে আমি ধন্যবাদ জানাই। তিনি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে আমাদের কোনো কাজে কখনও বাধা হয়ে দাঁড়াননি। আমি তার সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল এবং তিনি যাতে ভবিষ্যতে শারীরিকভাবে সুস্থ থাকেন সেই কামনা করি।

সম্প্রতি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান এবং তার মেয়ে জাইমা রহমানকে নিয়ে একটি অনলাইন সাক্ষাৎকারে অসৌজন্যমূলক কথা বলেন। এরপরই প্রতিমন্ত্রী মুরাদের একটি কথোপকথন ফাঁস হয়, যেখানে তিনি অশ্লীল ভাষায় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে কথা বলেন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন মহলে ডা. মুরাদের শাস্তির দাবি ওঠে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএস

মুরাদ,তথ্যমন্ত্রী
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close