• বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

পুলিশি নির্যাতনে নিহত রায়হানের পরিবারের পাশে বিএনপি

প্রকাশ:  ১৭ অক্টোবর ২০২০, ২০:২২ | আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২০, ২০:৩১
নিজস্ব প্রতিবেদক
সিলেটে পুলিশ হেফাজতে নিহত রায়হান উদ্দিন আহমদের শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানান বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে নিহত রায়হান উদ্দিন আহমদের শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। তাঁরা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে রায়হানের বাসায় গিয়ে সমবেদনা জানান এবং উপহারসামগ্রী পৌঁছে দেন।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুর ১২টার দিকে সিলেট মহানগরীর আখালিয়াস্থ নিহত রায়হানের বাসভবনে যান বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। তাঁরা নিহত রায়হানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং রায়হানের দুই মাস বয়সী মেয়ে আলফাকে কোলে নেন।

এ সময় বিএনপি নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের বলেন, ইলিয়াস আলী থেকে শুরু করে গুম, খুন ও নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশের সব নির্যাতিত সাধারণ জনগণের জন্য বিএনপির

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কাজ করে যাচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় আজ তারেক রহমানের নির্দেশে নিহত রায়হানের পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে বিএনপি। বিচার না হওয়া পর্যন্ত জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন নিয়ে বিএনপি জনগণের পাশেই থাকবে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, পুলিশ হেফাজতে নিরীহ রায়হান হত্যা বলে দেয় যে দেশের মানুষের নিরাপত্তা নেই। এই সরকারে কাছে জনগণের নিরাপত্তা আছে বলে মনে হয় না। বারবার পুলিশ ও দলীয় নেতাকর্মীদের হাতে নির্যাতন হচ্ছে সাধারণ মানুষ। আজ পর্যন্ত এই সব ঘটনার বিচার হয়নি। যার কারণে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন জায়গায় নির্যাতিত হতে হচ্ছে নিরীহ মানুষদের। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশে গুম, খুন, ধর্ষণ, নির্যাতন বেড়ে চলেছে। নিরীহ মানুষ থেকে শুরু করে বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে পুলিশ। দেশের জনগণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ। অথচ আজ সেই পুলিশই নিরীহ মানুষদের নির্যাতন করে মেরে ফেলছে।

রায়হান হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান নেতৃবৃন্দ। এ সময় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-ক্ষুদ্র ঋণবিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী।

প্রসঙ্গত, রায়হান নামের ওই যুবককে বন্দরবাজার থানা পুলিশ গত শনিবার (১০ অক্টোবর) বিকালে আটক করে। ওইদিন রাতে ফাঁড়িতে তার ওপর নির্যাতন চালায় পুলিশ এবং তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য টাকা দাবি করে। ভোরে অপরিচিত একটি মোবাইল থেকে ছেলের ফোন পায় রায়হানের বাবা। তাতে ওই ফাঁড়িতে তাকে আটকে রেখে ছেড়ে দেওয়ার জন্য টাকা দাবি করা হচ্ছে বলে জানায় রায়হান। বাবাকে টাকা নিয়ে এসে তাকে উদ্ধারের অনুরোধও করে রায়হান। ছেলেকে বাঁচাতে ভোরে তার বাবা টাকা নিয়ে ওই ফাঁড়িতে গেলে তাকে জানানো হয় রায়হান এখন ঘুমাচ্ছে, সকাল ১০টার দিকে আসতে হবে।

পরে সকাল ১০টা দিকে গেল তাকে বলা হয় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে যেতে। সেখানে গিয়ে তিনি জানতে পারেন তার ছেলে মারা গেছে। এরপর মৃত ছেলের শরীরে নির্যাতনের ভয়াবহ চিহ্ন দেখতে পান তিনি। রায়হানের হাতের নখগুলোও উপড়ানো ছিল। পুলিশ এরপর দাবি করে রায়হানকে ছিনতাইকারী সন্দেহ করে জনতা গণপিটুনি দেওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।

তবে সিটি করপোরেশনের ফুটেজে এর কোনও প্রমাণ মেলেনি। রবিবার সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজে তার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। বিকেলে ৩টার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এশার নামাজের পর জানাজা শেষে তার লাশ পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। রায়হানকে পুলিশ হেফাজতে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনাটি রবিবার থেকেই গণমাধ্যমে আলোচিত হচ্ছে। এ ঘটনায় সিলেট কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি। মামলা দায়েরের পর এর তদন্তভার দেওয়া হয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এনএন

সিলেট,বিএনপি,রায়হান উদ্দিন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close