• বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

ধর্ষণে ছাত্রলীগের জড়িত থাকা নতুন নয়: ফখরুল

প্রকাশ:  ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪৮
নিজস্ব প্রতিবেদক

ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগের জড়িত থাকার ঘটনা নতুন নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আগেও এমন অপকর্ম করেছে সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আগের দিন শনিবার বিকালে অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতে এ সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি।

সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দোষীদের শুধু চিহ্নিত করলেই হবে না, গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দিতে হবে।

কারো ওপর সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেই বলে দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার ভয়ভীতি এবং ত্রাস সৃষ্টি করে জাতিকে দমনের চেষ্টা করছে।

‘নির্বাচন না করে ভোটারবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আওয়ামী লীগই দেশের ক্ষমতা নিয়েছে’—বলে অভিযোগ করেন ফখরুল। সম্প্রতি ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের অভিযোগের জবাবে দলের এ অবস্থান জানান তিনি।

ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘বিএনপি কোনও ষড়যন্ত্রে বিশ্বাস করে না। জনগণের ভালোবাসা ও সমর্থনে বিশ্বাসী বিএনপি। কোনও সাজানো মধ্যরাতের ভোট ডাকতির নির্বাচন অথবা ভোটারবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে অতীতে কখনও বিএনপি ক্ষমতায় যায়নি। নিরপেক্ষ, অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়েই জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত ভোটদানের মধ্য দিয়েই বিএনপি ১৯৭৯, ৯১, ৯৬, ২০০১ সালে রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছে।’

বিএনপির মহাসচিবের অভিযোগ, ‘আওয়ামী সরকার বিভিন্নভাবে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় নিয়েছে। আঁতাত করেছে স্বৈরচারের সঙ্গে, অবৈধ মঈন উদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকারের সঙ্গে চক্রান্ত করে ২০০৮ সালে ক্ষমতা দখল করেছে। জাতীয়-আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।’

লিখিত বক্তব্যে মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচনের আগের রাতে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতা দখলকারী সরকার যখন করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়েছে। যখন সরকারের চরম উদাসীনতায় লক্ষ মানুষের জীবন ও জীবিকা হুমকির সম্মুখীন হয়েছে, হাজারও মানুষ ভঙ্গুর স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্য প্রাণ হারাচ্ছে, যখন সরকারি দলের লুটেরাদের দুর্নীতির কারণে অর্থনীতি ধ্বংসের মুখে, রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান দলীয়করণ ও দুর্নীতির কবলে পড়ে দুঃশাসন সৃষ্টি করেছে, জনগণের আস্থা যখন শূন্যের কোঠায় তখন জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সুপরিকল্পিত মিথ্যাচার এক গভীর ষড়যন্ত্র।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের সমালোচনা করেন তিনি। একইসঙ্গে কয়েকটি চ্যানেলে জিয়াউর রহমানকে বিকৃত করে নাটক প্রদর্শনের প্রতিবাদ জানান। প্রতিবাদের অংশ হিসেবে দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ কর্মসূচি দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় স্থায়ী কমিটির সভায়। একই সঙ্গে সভা, সেমিনার, ওযেবিনার, ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার দীর্ঘ ৯ বছর স্বৈচারারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়ায় তার যে অবদান সেটা জাতি সবসময় শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার সঙ্গে মনে রেখেছে। তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচার চালিয়ে তাকে পরাজিত করা যাবে না।

মির্জা ফখরুল সংবাদ সম্মেলনে সাধারণ মানুষ যেন বিনা বাধায় করোনা ভ্যাকসিন পেতে পারে, সে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন পুনরায় গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি দাবি জানান।

শনিবার অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তারেক রহমান সভাপতিত্বে করেন। আরও অংশগ্রহণ করেন, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ (টুকু)।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

ছাত্রলীগ,বিএনপি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close