• রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
  • ||

নাসিমের চিকিৎসায় ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড

প্রকাশ:  ০৬ জুন ২০২০, ২১:৪১ | আপডেট : ০৬ জুন ২০২০, ২১:৪৩
নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের চিকিৎসায় ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ও নিউরো সায়েন্সের পরিচালক অধ‌্যাপক ডা. দ্বীন মোহাম্মদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াসহ মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা বিকেলে তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন।

পর্যবেক্ষণ শেষে বিকেলে তারা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। কিন্তু তার অবস্থা সংকটাপন্ন। এই হাসপাতালে তার আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

মেডিক‌্যাল বোর্ডের সদস্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, ‘মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক পরিস্থিতি ক্রিটিক্যাল। আগামীকাল কী হবে তা আমরা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নাসিম গত ছয় দিন ধরে রাজধানীর শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। শুক্রবার ভোরে ব্রেন স্ট্রোক করার পর সফল অস্ত্রোপচার হলেও এখনো মোহাম্মদ নাসিমের মাথার ভেতরে বেশকিছু রক্ত জমাট বেঁধে আছে। তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘণ্টা তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

শনিবার দুপুরে মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে তানভির শাকিল জয় জানিয়েছেন, তার বাবা ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ে ৫ দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। পরে তার শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে।

তিনি বলেন, ‘করোনা থেকে আব্বা (মোহাম্মদ নাসিম) খুব দ্রুত রিকভার করেন। কিন্তু গতকাল (শুক্রবার) সকালে আব্বার ম্যাসিভ ব্রেন স্ট্রোক হয়। সঙ্গে সঙ্গে অপারেশন জমাট বাঁধার রক্তের অধিকাংশই অপসারণ করা হয়। কিন্তু তারপরও আব্বা অত্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় আছেন। কেননা, এত বেশি রক্তক্ষরণ হয়েছে যে মাথার ভেতরে এখনো কিছু রক্ত জমাট বেঁধে আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখানকার চিকিৎসকরা আমাদের জানিয়েছেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা আব্বাকে যদি ওনারা স্থিতিশীল রাখতে পারেন তাহলে হয়তো সংকট কেটে যেতে পারে। উনাকে এখন আইসিইউতে রাখা হয়েছে। তিনি অচেতন অবস্থায় আছেন।’

জয় জানান, ৪৮ ঘণ্টা পর সিটি স্ক্যান করে দেখা হবে, মাথার ভেতরের রক্তক্ষরণ কী রকম আছে। ৭২ ঘণ্টা যদি তার শারীরিক অবস্থা এমন স্টেবল থাকে, তারপর হয়তো সাপোর্টটা আস্তে আস্তে কমিয়ে দিয়ে চেতনা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হবে।

এদিকে, মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক অবস্থাসহ সার্বিক বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপারেশন চলাকালেও একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে তানভির শাকিল জয় ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছেন।

আরও বেশ কয়েক দিন আগে থেকে অসুস্থ মোহাম্মদ নাসিম গত ১ জুন এই হাসপাতালে আসার আগেও একবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করালে ফল নেগেটিভ আসে। ওই সময় তার স্ত্রী এবং একজন গৃহকর্মীর করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে বলে আওয়ামী লীগের একজন নেতা জানিয়েছিলেন। পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এলেও জ্বর-কাশিসহ অন্যান্য অসুস্থতা বাড়তে থাকায় ১ জুন দুপুরে শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন নাসিম। সেখানে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। রাতে ওই পরীক্ষার ফল ‘পজিটিভ’ আসে।

১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর কারাগারে নিহত জাতীয় চার নেতার একজন শহীদ এম মনসুর আলীর ছেলে মোহাম্মদ নাসিম আওয়ামী লীগের ১৯৯৬-২০০১ সরকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর মন্ত্রিসভায় না থাকলেও পরের মেয়াদে তাকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী করেন শেখ হাসিনা। নাসিমের সময় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা জাহিদ মালেক এই সরকারে পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রণালয় সামলাচ্ছেন। মন্ত্রিসভায় না থাকলেও দলীয় কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করছেন মোহাম্মদ নাসিম।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

মোহাম্মদ নাসিম
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close